khabor online most powerful bengali news

ফ্রান্সে স্কুলে গুলি, আইএমএফ অফিসে বিস্ফোরণ, আহত ৩

ফ্রান্স : ফ্রান্সের একটি হাইস্কুলে গুলি চলার ঘটনায় আহত হল দুই ছাত্র। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ফ্রান্সের গ্রাসে। ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছে ১৭ বছরের ১ ছাত্র। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, এটা কোনো সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা নয়।   অন্য দিকে প্যারিসে আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডারের দফতরে একটি বিস্ফোরণ ঘটে। একটি চিঠি খোলা মাত্রই তা ফেটে যায়। ঘটনায় আহত হয়েছেন এক মহিলা কর্মী। প্যারিসের পুলিশ প্রধান মাইকেল কাডট জানিয়েছেন, বোমাটি ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানানো। এপ্রিল ফ্রান্সে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। তার আগে একই দিনে এমন দু’টি ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা দেশে। এখনও পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী ঘটনা দু’টির দায় স্বীকার করেনি।   

আরও পড়ুন

৪১,৬২৮টি প্রাথমিক শিক্ষক পদে ফল প্রকাশ করল পর্ষদ

কলকাতা: প্রতীক্ষার অবসান। ৪১,৬২৮টি প্রাথমিক শিক্ষক পদের ফল প্রকাশ করল প্রাথমিক শিক্ষক পর্ষদ। পর্ষদের চেয়ারম্যান মানিক ভট্টাচার্য মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, পরীক্ষার ফল ঘোষণার ক্ষেত্রে প্রশিক্ষিত পরীক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে প্রশিক্ষিত সফল পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১১ হাজার ৩০০-রও বেশি। সফল পরীক্ষার্থীদের কাছে এসএমএস ও ইমেল পাঠাবে পর্ষদ। তাদেরকে কাউন্সিলিং-এর জন্য কোথায়, কখন যেতে হবে তা জানানো থাকবে ওই বার্তাতেই। কাউন্সিলিং প্রক্রিয়া শুরু হবে বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারি থেকে। গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়া চলতি সপ্তাহের মধ্যেই শেষ হবে বলে এদিন আশা প্রকাশ করেছেন মানিকবাবু।  তবে ফল প্রকাশ হয়ে গেলেও একসঙ্গে ৪১, ৬২৮ জনের কাছে বার্তা দেওয়া হবে না। পর্ষদের তালিকাতেও এখনই তোলা হবে…

আরও পড়ুন

স্কুলের গ্রুপ ডি ও গ্রুপ সি পরীক্ষা সম্ভবত ফেব্রুয়ারি ও মার্চে

কলকাতা: স্কুল শিক্ষাকর্মী পরীক্ষার দিন ঘোষণার আগে রাজ্যের সমস্ত স্কুলকে চিঠি পাঠাল স্কুল সার্ভিস কমিশন। কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, চিঠিতে গ্রুপ ডি ও গ্রুপ সি শিক্ষাকর্মী নিয়োগের পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ দেওয়া হয়েছে ১৯ ফেব্রুয়ারি (গ্রুপ ডি) ও ৫ মার্চ (গ্রুপ সি)। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২৭ লক্ষ। পরীক্ষার  জন্য প্রয়োজন ৫০০০ হাজার মতন স্কুল। স্কুলগুলি হ্যাঁ বললেই চূড়ান্ত দিন ঘোষণা করবে স্কুল শিক্ষা দফতর। স্কুল শিক্ষাকর্মীর  গ্রুপ সি পদে আবেদনকারীর সংখ্যা প্রায়  ১২ লক্ষের মতন আর গ্রুপ ডি প্রায় ১৫ লক্ষ।  ২০১৬ সালের আগষ্ট মাসে গ্রুপ সি ও ডি নিয়োগের পরীক্ষার  বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়ে কমিশনের তরফ থেকে।  সেই সময়ে ফাঁকা পদ ছিল ৪৯৫৩।  এই কয়েক মাসে বেড়ে…

আরও পড়ুন

টেট পাশ করা ডি.এল.এড / পি.টি.টি প্রশিক্ষিতদের চাকরি কতটা নিশ্চিত

অভি ভট্টাচার্য ২০১২ সালের প্রাথমিকের টেটে (TET) যে সব ডি. এল. এড প্রশিক্ষিতরা বঞ্চনার অভিযোগ করেছিল, হতাশ ছিল, আজ তাদেরই একাংশ ২০১৪ সালের টেটে পাশ করে চরম আশাবাদী । অভি, আখরুজ্জামান, শুভাশিস, আবদুল, শুভেন্দু, স্বরাজ- এরা সবাই এবার ইন্টারভিউ দিয়েছেন। ওরা সকলেই প্রশিক্ষিত। সকলেই মনে করছেন, কেন্দ্রের মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক ও এন. সি. টি. ই- এর আইন অনুযায়ী প্রত্যেক টেট পাশ ডি.এল.এড-দের চাকরি নিশ্চিত হওয়া উচিৎ।  ওরা প্রশিক্ষিত, ওরা টেট পাশ । ওদের দাবি, রাজ্য সরকার যদি একজন প্রশিক্ষণহীনকেও নিয়োগ করতে চায় তবে আইনানুগ টেট পাশ করা প্রশিক্ষিত সকলের চাকরি পাক । রাজ্য সরকারের গেজেটেও একথা লেখা আছে ।…

আরও পড়ুন

পুজোর আগেই স্কুলে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার পথে রাজ্য

আজ হলে আজ, কাল হলে কাল। জরুরিকালীন ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার  বিকাশ ভবনে তিনি বলেন, যাঁরা টেট উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাঁরা অপেক্ষা করছেন বহুদিন ধরে। তাই শিক্ষক নিয়োগে এক মুহূর্ত দেরি করা যাবে না। তিনি এব্যাপারে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে দুই স্কুল বোর্ডের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন। বিকাশ ভবনে শিক্ষাসচিব, দুই স্কুল বোর্ডের চেয়ারম্যানের সঙ্গে এদিন শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত জরুরি বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী। বৈঠক থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় এক মুহূর্তও দেরি করা যাবে না। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। তা আজই হোক আজ, কাল…

আরও পড়ুন

হাইকোর্টের রায়ের পর টেটের ফল প্রকাশ

হাইকোর্টের নির্দেশের পরই প্রকাশিত হল টেটের ফল। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে জানা যাচ্ছে ফল।  বুধবার প্রাথমিক টেটের ফলপ্রকাশ ও নিয়োগ করতে রাজ্যকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। পাশাপাশি হাইকোর্ট জানায় নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে প্রশিক্ষিতদের। তবে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চের সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগে কোনও বিধি নিষেধ জারি করেননি বিচারপতি সি এস কারনান। নিয়োগপত্র পাবেন তারাও। তবে নিয়োগের দু’বছরের মধ্যে তাদের প্রশিক্ষণ নিয়ে নিতে হবে। রাজ্যের প্রায় ২৩ লক্ষ পরীক্ষার্থী প্রাইমারি টেট পরীক্ষা দিয়েছিল। প্রাথমিকে অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগের ব্যাপারে এক বছর বাড়তি সময় চেয়ে ২০১৫ সালের ২৩ মার্চ কেন্দ্রকে চিঠি লেখে রাজ্য। উত্তরে কেন্দ্র জানায়, ২০১৬ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে…

আরও পড়ুন