khabor online most powerful bengali news

এএফসি কাপের গ্রুপপর্বের অভিযান শুরুতে আখেরে আই লিগের অঙ্ক মোহনবাগানে

সানি চক্রবর্তী: একই মাঠ, একই প্রতিপক্ষ, শুধু মঞ্চটা আলাদা। তিন দিন আগে কান্তিরাভাতে ঘটে যাওয়া মোহনবাগান বনাম বেঙ্গালুরু ম্যচের রিপ্লে। শুধু আই লিগের মঞ্চটা বদলে এএফসি কাপ। আর তাতেই কতটা পার্থক্য! দুই দলের কাছেই নতুন শুরু। এক দিকে বেঙ্গালুরু এফসি গত বারের এএফসি কাপের রানার্স, তাদের কাছে এই প্রতিযোগিতা রীতিমতো সম্মানের লড়াই। এ বারের আই লিগে এক দমই ছন্দে না থাকা সুনীল-বিনীতদের কাছে তাই নতুন উদ্যমে শুরু করার লড়াই। অন্য দিকে, এশিয়ার মঞ্চে বেঙ্গালুরুর পাওয়া ঈর্ষণীয় সাফল্যকে তাড়া করার খাতির মোহনবাগানের। মরশুমের শুরু থেকেই সনি-সঞ্জয়রা এশিয়ান মঞ্চে নিজেদের দলের জাত চেনাতে মরিয়া ছিলেন। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ আলাদা। আই লিগের…

আরও পড়ুন

পয়া কান্তিরাভাতেই ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে মরিয়া মোহনবাগান

সানি চক্রবর্তী: ৩০ মে ২০১৫। কান্তিরাভা স্টেডিয়াম। বেঙ্গাল্লুরু এফসির বিরুদ্ধে ১-১ ড্র মোহনবাগানের। অতি মূল্যবান এক পয়েন্টে তেরো বছরের খরা কাটিয়ে ভারত সেরা মোহনবাগান। কাট টু ১১ মার্চ ২০১৬। হঠাৎ ফর্ম খুইয়ে ধুঁকতে থাকা মোহনবাগান মুখিয়ে লিগের লড়াইয়ে ঘুরে দাঁড়াতে। সামনে সেই বেঙ্গালুরু এফসি। মঞ্চ সেই কান্তিরাভা স্টেডিয়াম। গত দু’ বছরে মোহনবাগানের প্যান ইন্ডিয়ান কম্পিটিটর বেঙ্গালুরু এফসি। বর্তমানে একদমই ছন্দে নেই তারা। ১১ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট পেয়ে দাঁড়িয়ে লিগের পঞ্চম স্থানে। তবে সুনীল-লিংডো-বিনীতরা তাঁদের দিনে যথেষ্ট শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। সঞ্জয় সেনের মুখে শোনা গেল ঠিক সেই কথাই। তাঁর কথায় “বেঙ্গালুরু ছন্দে নেই এটা ঠিক, কিন্তু তারা যথেষ্ট ভালো দল, যে কোনো…

আরও পড়ুন

মুম্বই গাঁট টপকে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া মোহনবাগান

সানি চক্রবর্তী: রক্ষণ-রোগ কাটিয়ে ঘিুরে দাঁড়ানো। মুম্বই ম্যাচের প্রাক্কালে মোহনবাগান শিবিরের মন্ত্র এটাই। রক্ষণের ভুলে চার্চিল ম্যাচে দু’টো গেল হজম করার জেরে আই লিগের ন’ম্যাচের অপরাজিত তকমায় ছেদ পড়েছে। হারের ক্ষত দগদগে না হলেও রক্ষণের ভুলভ্রান্তিতে বেজায় চটে সঞ্জয় সেন। এডু-আনাসকে আলাদা করে নিয়ে বসে ভিডিও অ্যানালিসিসের ক্লাস থেকে অনুশীলনে হাতেকলমে শুধরে দেওয়া, কোনোটাই বাদ দেননি। বাগান-কোচ রক্ষণের ভুল নিয়ে কতটা চটে তা তাঁর কথাতেই পরিষ্কার। বলছিলেন, “শিক্ষানবিশের মতো গোল হজম করেছি আগের ম্যাচে। ভুলত্রুটিগুলো দ্রুত শোধরাতে হবে। একই ভুল করে গেলে খেতাব জেতা মুশকিল, সেটা মাথায় রেখেই এগোতে হবে।” টানা ম্যাচ খেলার ধকলে হালকা চোট রয়েছে এডু ও আনাস…

আরও পড়ুন

পালটে যাওয়া চার্চিলের বিরুদ্ধে সতর্ক সঞ্জয়

সানি চক্রবর্তী : আই লিগ ও এএফসি কাপ মিলিয়ে ১৩ ম্যাচে অপরাজিত দৌড় চলছে মোহনবাগানের। যার মধ্যে ১০ ম্যাচেই জিতেছে সঞ্জয় সেন ব্রিগেড। চোটআঘাত সবুজ-মেরুন শিবিরের নিত্যসঙ্গী হলেও দুরন্ত রিজার্ভ বেঞ্চের সুবাদে তাল কাটেনি তাদের। ফর্মের বিচারে মোহনবাগান ঠিক কোন জায়গায় রয়েছে, এই তথ্যগুলোর পরে আর নতুন করে বলে দিতে হয় না। ৯ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে থাকা সেই দলের কোচই নাকি সমীহ করছেন লিগ টেবিলে আট নম্বরে থাকা দলকে। চার্চিলের বিরুদ্ধে চেতলানিবাসীর সতর্ক হয়ে পড়ার কারণ ডেরেক পেরেরা। ভারতীয় ফুটবলের দীর্ঘদিনের এই পোড়খাওয়া কোচ কয়েক দিন হল গোয়ার দলটির দায়িত্ব নিয়েছেন। আর তার মধ্যেই তাদের ফুটবলে এসেছে…

আরও পড়ুন

ভ্যালেন্সিয়াকে চূর্ণ করে এএফসি কাপের মূলপর্বে মোহনবাগান

মোহনবাগান-৪ (জেজে-২, সনি, হুসেন-আ) ভ্যালেন্সিয়া-১ (গোডফ্রে) (দুই লেগে মিলিয়ে মোহনবাগান ৫-২ ব্যবধানে জয়ী) সানি চক্রবর্তী: একা জেজে’য় রক্ষে নেই, আবার দোসর সনি। মোহনবাগানের এই দুই তারকা ফুটবলারের দাপটেই কার্যত উড়ে গেল ক্লাব ভ্যালেন্সিয়া। রবীন্দ্র সরোবর স্টেডিয়ামে মালদ্বীপের দলটিকে ৪-১ ব্যবধানে চূর্ণ করে এএফসি কাপের মূল পর্বে চলে গেল সঞ্জয় সেন ব্রিগেড। জোড়া গোল করলেন জেজে লালপেখলুয়া। তবে হুসেনের আত্মঘাতী দ্বিতীয় গোলটিকে ঘিরে ধন্দ রয়েছে। জেজেও বুঝতে পারেননি, বিপক্ষ খেলোয়াড়ের পায়ে লাগার পরে বল জালে জড়িয়েছিল কি না। সদস্য-সমর্থক সকলেই ম্যাচশেষে মেতেছিলেন পাহাড়ি ফুটবলারটির হ্যাটট্রিক নিয়ে। তবে ম্যাচ রেফারি রিপোর্ট তাঁদের আনন্দে কিছুটা ভাগ বসতে পারে। এইটুকু বিতর্ক বাদ দিলে, দৃষ্টিনন্দন ফুটবলের ছটায়…

আরও পড়ুন

ক্রীড়াবিদ সম্মাননা অনুষ্ঠান

কলকাতা: সোমবার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে ক্রীড়াবিদদের সম্মাননা জ্ঞাপন করা হল রাজ্য সরকারের যুবকল্যাণ ও ক্রীড়া দফতরের পক্ষ থেকে। অনুষ্ঠানে বিগত ও বর্তমান যুগের ক্রীড়াবিদরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যুবকল্যাণমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ক্রীড়ামন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্ল প্রমুখ। ওই অনুষ্ঠানে নতুন ফুটবলের সূচনা করা হয়। প্রতি বছরের মতো এ বছরে বিভিন্ন ক্লাবকে অর্থ সাহায্য করা হয় সরকারের তরফ থেকে। সর্বকালীন অবদানের জন্য সম্মাননা জ্ঞাপন করা হল বদ্রু ব্যানার্জিকে। একই কারণে সংবর্ধনা জানানো হল প্রাক্তন টেনিশ খেলোয়াড় নরেশ কুমারকে। রিও অলিম্পিকে চতুর্থ স্থান পাওয়ার জন্য অনন্য সম্মান প্রদান করা হল জিমন্যাস্ট দীপা কর্মকারকে। আর মোহনবাগানের ফুটবল কোচ সঞ্জয় সেন পেলেন ‘ক্রীড়াগুরু’ সম্মান। …

আরও পড়ুন

অস্ত্রোপচারের আশঙ্কা নিয়েও আজ দলের জন্য খেলবেন সনি

সানি চক্রবর্তী: লিগের গুরুত্বের বিচারে অ্যাসিড টেস্ট। টানা দু’টি ম্যাচে ড্র করায় এক দিকে জয়ের রাস্তায় ফিরে লিগের মগডালে ওঠার লড়াই। অন্য দিকে, চোট-আঘাত সামলে ঘরের মাঠে অল-উইন রেকর্ড বজায় রাখার চ্যালেঞ্জ। টানা খেলার ক্লান্তিতে এ হেন মহা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগের দিন পুরোদমে অনুশীলন না করলেও ফোকাসড সনি-ডাফি-কাটসুমিরা। তবে এই ম্যাচটা বাগান-জনতার নয়নের মণি সনি নর্ডির কাছেও পেশাদারিত্ব ও আবেগের মিশেলের মাঝে দাঁড়িয়ে এক শক্ত লড়াই। টানা হাঁটুর চোটে ভোগায় আই লিগে এখনও নিজের সেরা ফর্মে পৌঁছতে পারেননি সনি। কখনও খেলতে পেরেছেন, কখনও দলের বাইরে যেতে হয়েছে। সনির কাছে শিবাজিয়ান্স ম্যাচে মাঠে থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ অস্থিবিশেষজ্ঞ অনন্ত জোশির পরামর্শেই। সনিই জানালেন,…

আরও পড়ুন

সনিকে ছাড়াই মুম্বইবধের ছক কষছেন ক্ষিপ্ত সঞ্জয়

সানি চক্রবর্তী: রবিবার বিকেলে চড়া মেজাজের ডার্বি ম্যাচে খেলা। পরের দিনই শিলিগুড়ি থেকে গুয়াহাটি হয়ে মুম্বইয়ে এসে বিশ্রাম। মঙ্গলবারই ফের জোর কদমে প্রস্তুতি বুধবারের ম্যাচের জন্য। এএফসি কাপে খেলার পাশাপাশি ফেডারেশনের আই লিগের এ হেন সূচিতে রীতিমতো ক্ষিপ্ত সঞ্জয় সেন। আর হবেন নাই বা কেন, একেই চোট আঘাতের কারণে অনেক ফুটবলারের সার্ভিস পাচ্ছেন না। তার উপরে সেই তালিকায় ফের যোগ হয়েছে দলের সেরা তারকা সনি নর্ডির নাম। পুরোনো চোটের জায়গাতে ফের আঘাত পেয়েছেন তিনি। দলের প্রথম একাদশের ফুটবলাররা রিকোভারির সময় পাচ্ছেন না একদমই। তার মাঝেই তাঁদের ফের ম্যাচ খেলতে নামতে হচ্ছে। তার উপরে মাথায় রাখতে হচ্ছে আই লিগের টেবিলের ইঁদুর…

আরও পড়ুন

পেশাদারিত্বের নিষ্ফলা হিসেবনিকেশে আবেগের আঁকিবুকি সনি-ওয়েডসনের

সানি চক্রবর্তী: হিসেব-নিকেশ কষা ট্যাকটিক্যাল ফুটবল, প্রতিপক্ষকে বিপজ্জনক হতে দেখলেই কড়া ট্যাকেল। অসমান মাঠের পাশাপাশি অতিরিক্ত সাবধানী ফুটবল। সব কিছুর নিট ফল আবেগের বিস্ফোরণটা মাঠের বাইরে হলেও কাঞ্জনজঙ্ঘায় দুই প্রধান উপহার দিল ম্যাড়ম্যাড়ে ফুটবল। তবে আবেগের খাতায় কিন্তু নাম তুলে গেলেন দুই প্রধানের সেরা দুই তুরুপের তাস। সনি চোট নিয়েও খেলে গেলেন, আর সমর্থকদের জন্য তার হৃদয় যে কাঁদে বুঝিয়ে দিলেন ওয়েডসন। ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান দুই শিবিরই নজর দিয়েছে আই লিগের ট্রফিটায়। তাই অতি আক্রমণত্মক খেলতে গিয়ে হেরে যেতে চায়নি কোনো পক্ষই। একটা দু’টো ক্ষেত্র বাদ দিলে তো দেবজিত-রেহানেশদের বলই ধরতে হয়নি। এতেই পরিষ্কার হয়ে যায়, শিলিগুড়ির উৎসবের মেজাজ সঞ্জয়-মরগ্যানের গেমপ্ল্যানে পড়েনি।…

আরও পড়ুন

আবেগের তীব্র লড়াইয়ে টেক্কা দিয়ে পেশাদারিত্বের সিঁড়িতে এগিয়ে চলার মহারণ

সানি চক্রবর্তী: লাল-হলুদ দ্বীপে যেন উঁকি-ঝুঁকি মারছে সবুজ-মেরুন কিছু ক্ষেত্র। শিলিগুড়ির বর্তমান অবস্থা যেন এমনটাই। একটা তথ্য তুলে দিলে ব্যাপারটা বুঝতে সুবিধা হবে। উত্তরবঙ্গের গুরুত্বপূর্ণ শহরে এখন ইলিশের দর ৩ হাজার, আর চিংড়ির ৫৫০। মাঠের বাইরের আবহে, স্মৃতিতে কিছুটা ব্যাকফুটে থাকলেও মাঠের লড়াইয়ে সেয়ানে-সেয়ানে টক্করে রয়েছে মোহনবাগান। আর মরগ্যান ব্রিগেডের আত্মবিশ্বাস যে আকাশচুম্বী, তা আর নতুন করে বলে দিতে হবে না। এত কিছুর মধ্যেও দুই শিবিরেরই একটাই লক্ষ্য, অলআউট ঝাঁপিয়ে তিন পয়েন্ট ঝুলিতে তোলা। কারণ, আবেগের মহারণে যে দলই অন্যকে টেক্কা দিতে পারবে, তারাই লিগের ইঁদুর দৌড়ে অ্যাডভান্টেজ পেয়ে যাবে। তাই সম্মানের লড়াইয়ে বাজিমাত করার পাশপাশি থাকছে, পেশাদারি ভঙ্গিতে ভারতসেরা…

আরও পড়ুন