khabor online most powerful bengali news

চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলনের জন্য বিরোধীদের দুষলেন পার্থ

কলকাতা:  স্কুল শিক্ষকদের যাবতীয় নিয়োগ ১৫ মার্চের মধ্যে শেষ করার কথা দু’দিন আগেই বলেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শনিবার বললেন, যেভাবে মামলা আর বিক্ষোভ চলছে, তাতে তিন মাসেও নিয়োগ সম্পূর্ণ করা যাবে কি না, সে ব্যাপারে তিনি সন্দিহান।     এদিন শিক্ষামন্ত্রী বলেন, লাল, গেরুয়া, তেরঙ্গা একসঙ্গে চাকরিপ্রার্থীদের বিক্ষোভে উস্কানি দিচ্ছে। যারা উস্কানি দিচ্ছে, তাদের চিহ্নিত করা হবে বলে এদিন হুঁশিয়ারি দেন পার্থবাবু। তিনি আরও বলেন, যারা ভুয়ো সার্টিফিকেট দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সরকার।    পার্শ্ব শিক্ষকদের উদ্দেশে মন্ত্রীর বার্তা, বর্তমান সরকার তাঁদের জন্য সংরক্ষণের ব্যবস্থা করেছে, তাঁদের চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। তবে এভাবে বিক্ষোভ চললে, পার্শ্ব শিক্ষকদের দায় দায়িত্ব…

আরও পড়ুন

পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলনে বিরক্ত শিক্ষামন্ত্রী

কলকাতা: মেধা তালিকায় নাম রয়েছে ৷ কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ ৷ কিন্তু নিয়োগপত্রে পার্শ্ব শিক্ষকের পদ দেখে সেই নিয়োগ পত্র নিতে নারাজ চাকরিপ্রার্থীরা ৷ জেলায় জেলায় প্রাথমিক শিক্ষকপদে চাকরি প্রার্থীরা আংশিক সময়ের বদলে পূর্ণ সময়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন ৷ বীরভূম, বর্ধমান, পশ্চিম মেদিনীপুর, দিকে দিকে একই চিত্র ৷ এই আন্দোলন নিয়ে বিরক্ত শিক্ষামন্ত্রী ৷ এই প্রসঙ্গে এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘প্যারা টিচারের নিয়োগপত্র থাকলে চাকরি পেয়েছে ৷ যাঁদের নিয়োগপত্র নেই তাঁরা পায়নি ৷ প্যারা টিচারদের ১০% সংরক্ষণ ৷ এরকম চলতে থাকলে সংরক্ষণ থাকবে কি না, তা ভেবে দেখবে সরকার ৷’ একইসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর হুঁশিয়ারি, ‘ছাত্রদের না পড়িয়ে যাঁরা আন্দোলন…

আরও পড়ুন

১৫ মার্চের মধ্যে ৭২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ : শিক্ষামন্ত্রী

কলকাতা : ১৫ মার্চের মধ্যে প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের ৭২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হবে। সোমবার বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, তার মধ্যে প্রাথমিকের নিয়োগপর্ব শেষ করা হবে এই মাসের মধ্যে। পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নিয়োগ নিয়ে কোনো অভিযোগ থাকলে প্রমাণ-সহ জমা দিতে হবে শিক্ষা দফতরে। ইতিমধ্যেই এ বিষয়ে ৫ হাজার অভিযোগ জমা পড়েছে। তবে এগুলির কোনো ভিত্তি নেই। শুধু মাত্র শিক্ষক নিয়োগ নয়, স্কুল পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন রাখতেও রাজ্য সরকার নতুন কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, স্কুল পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য প্রতিটি স্কুলে এক জন করে লোক নিয়োগ করা হবে। তবে মামলার জেরে নিয়োগ প্রক্রিয়া যে…

আরও পড়ুন

৪১,৬২৮টি প্রাথমিক শিক্ষক পদে ফল প্রকাশ করল পর্ষদ

কলকাতা: প্রতীক্ষার অবসান। ৪১,৬২৮টি প্রাথমিক শিক্ষক পদের ফল প্রকাশ করল প্রাথমিক শিক্ষক পর্ষদ। পর্ষদের চেয়ারম্যান মানিক ভট্টাচার্য মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, পরীক্ষার ফল ঘোষণার ক্ষেত্রে প্রশিক্ষিত পরীক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে প্রশিক্ষিত সফল পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১১ হাজার ৩০০-রও বেশি। সফল পরীক্ষার্থীদের কাছে এসএমএস ও ইমেল পাঠাবে পর্ষদ। তাদেরকে কাউন্সিলিং-এর জন্য কোথায়, কখন যেতে হবে তা জানানো থাকবে ওই বার্তাতেই। কাউন্সিলিং প্রক্রিয়া শুরু হবে বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারি থেকে। গোটা নিয়োগ প্রক্রিয়া চলতি সপ্তাহের মধ্যেই শেষ হবে বলে এদিন আশা প্রকাশ করেছেন মানিকবাবু।  তবে ফল প্রকাশ হয়ে গেলেও একসঙ্গে ৪১, ৬২৮ জনের কাছে বার্তা দেওয়া হবে না। পর্ষদের তালিকাতেও এখনই তোলা হবে…

আরও পড়ুন

টেট পাশ করা ডি.এল.এড / পি.টি.টি প্রশিক্ষিতদের চাকরি কতটা নিশ্চিত

অভি ভট্টাচার্য ২০১২ সালের প্রাথমিকের টেটে (TET) যে সব ডি. এল. এড প্রশিক্ষিতরা বঞ্চনার অভিযোগ করেছিল, হতাশ ছিল, আজ তাদেরই একাংশ ২০১৪ সালের টেটে পাশ করে চরম আশাবাদী । অভি, আখরুজ্জামান, শুভাশিস, আবদুল, শুভেন্দু, স্বরাজ- এরা সবাই এবার ইন্টারভিউ দিয়েছেন। ওরা সকলেই প্রশিক্ষিত। সকলেই মনে করছেন, কেন্দ্রের মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক ও এন. সি. টি. ই- এর আইন অনুযায়ী প্রত্যেক টেট পাশ ডি.এল.এড-দের চাকরি নিশ্চিত হওয়া উচিৎ।  ওরা প্রশিক্ষিত, ওরা টেট পাশ । ওদের দাবি, রাজ্য সরকার যদি একজন প্রশিক্ষণহীনকেও নিয়োগ করতে চায় তবে আইনানুগ টেট পাশ করা প্রশিক্ষিত সকলের চাকরি পাক । রাজ্য সরকারের গেজেটেও একথা লেখা আছে ।…

আরও পড়ুন

প্রাথমিক শিক্ষক: ইন্টারভিউ-এ কী ধরনের প্রশ্ন করা হতে পারে

অভিজিৎ ব্যানার্জি ইন্টারভিউয়াররা যে প্রশ্নগুলো আপনাকে করতেই পারেন ♦ আপনার নাম ♦ আপনার বয়স বা জন্ম তারিখ ♦ আপনার ঠিকানা ♦ আপনার নামের অর্থ ♦ আপনার বাড়িতে কে কে আছেন ♦ আপনার এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য/কাউন্সিলর, পঞ্চায়েত প্রধান/চেয়ারম্যান, এমএলএ, এমপি, ডিএম ইত্যাদির নাম ♦ আপনার রাজ্য সম্পর্কে তথ্য ♦ আপনার জেলা সম্পর্কে তথ্য ♦ আপনার এলাকায় কোনও ঐতিহাসিক স্থান থাকলে তার তথ্য ♦ আপনি বর্তমানে কী করেন ♦ সেই পেশা থেকে এই পেশায় আসতে চাইছেন কেন ♦ এতদিন চাকরি খোঁজেননি কেন যে ধরনের চাকরি প্রশ্নও সেই ধরনেরই হবে। স্কুল সার্ভিস কমিশনের চাকরির ক্ষেত্রে আপনার বিষয় থেকে প্রশ্ন করতে পারে। জেনারেল নলেজ…

আরও পড়ুন

প্রাথমিক শিক্ষক পদের ইন্টারভিউ: কিছু প্রস্তুতির টিপ্‌স

অভিজিৎ ব্যানার্জি আপনি যদি চাকরির পরীক্ষার পড়াশোনার মধ্যে থাকেন তবে আপনাকে যেগুলো করতে হবে তা হল – প্রত্যেক দিন সংবাদপত্র পড়তে হবে। পড়া মানে শুধু হেডলাইন পড়া নয়। ভাবতে হবে এখান থেকে কী কী প্রশ্ন পরীক্ষায় জিজ্ঞেস করা হতে পারে। সে ইন্টারভিউ হোক বা লিখিত পরীক্ষা, সাম্প্রতিক ঘটনা সম্বন্ধে আপনাকে সচেতন থাকতেই হবে। এই প্রশ্ন দু–এক বছর আগে ঘটে যাওয়া ঘটনা থেকেও হতে পারে। কী ধরনের চাকরি সেটা মূল কথা নয়। অনেক সময়ে আপনার জ্ঞানকেও যাচাই করে দেখা হয়। ভাবলেন, আপনি ইতিহাস নিয়ে পড়েছন অথচ ভূগোলের এত গভীর প্রশ্ন আপনাকে ধরছে কেন? তার কারণ আপনি বিষয়ট কতটা জানেন, নিজের বিষয়…

আরও পড়ুন

পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি জেলার প্রাথমিকে টেট উত্তীর্ণদের ইন্টারভিউ-র দিন ঘোষণা

টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ভাইবা ও অ্যাপটিটিউড টেস্ট ১৯ থেকে ২৮ অক্টোবরের মধ্যে হবে বলে আগেই ঘোষণা করেছিল ওয়েস্টবেঙ্গল বোর্ড অফ প্রাইমারি এডুকেশন। মঙ্গলবার রাজ্যের কয়েকটি জেলায় ইন্টারভিউ-র দিন ঘোষণা করে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একনজরে সেই তালিকা জলপাইগুড়ি ২৪ অক্টোবর, মুর্শিদাবাদ ২১ অক্টোবর, নদিয়া ২১ অক্টোবর, উত্তর ২৪ পরগনা ২১ অক্টোবর, কলকাতা ২১ অক্টোবর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ২১ অক্টোবর, হুগলি ২১ অক্টোবর, পশ্চিম মেদিনীপুর ২১ অক্টোবর, বাঁকুড়া ২২ অক্টোবর, পুরুলিয়া ২১ অক্টোবর। প্রত্যেক প্রার্থীকে ১৯ তারিখ থেকে ২৮ তারিখের মধ্যে ইন্টারভিউ সংক্রান্ত সব তথ্য মেসেজ ও মেল করে জানাবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। অন্য জেলাগুলিতে কবে ইন্টারভিউ হবে, তা পরে ঘোষণা…

আরও পড়ুন

প্রাথমিকে নিয়োগ : রাজ্যকে ভর্ৎসনা হাইকোর্টের

এনসিটিই-কে কে বিপথে চালনা করার জন্য রাজ্যকে তীব্র ভর্ৎসনা করল কলকাতা হাইকোর্ট। প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি মামলায় বৃহস্পতিবার বিচারপতি সি এস কারনান সরকারি আইনজীবীকে প্রায় তুলোধনা করেন। তিনি বলেন, ২০১৫-এর ২৩ মার্চ রাজ্য সরকার কেন্দ্রকে চিঠি লিখে জানিয়েছিল, রাজ্যে বি এড ডিগ্রিধারী প্রার্থীর সংখ্যা কম।এই অবস্থায় রাজ্যের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে অপ্রশিক্ষিত শিক্ষক নেওয়ার জন্য রাজ্যকে যেন কেন্দ্র অনুমতি দেয়। এর প্রেক্ষিতে এনসিটিই চলতি বছরের ২২ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যকে অপ্রশিক্ষিত শিক্ষক নিয়োগের অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু দেখা যাচ্ছে শিক্ষক নিয়োগের নাম করে কেন্দ্রের থেকে ছাড় নিয়েও সেখানে আদৌ শিক্ষক নিয়োগ করেনি রাজ্য। আসলে রাজ্য কেন্দ্রকে বিপথে (মিসগাইড) চালিত করেছে। গত বছর…

আরও পড়ুন