khabor online most powerful bengali news

কেমন ভাবে বদলাচ্ছে পৃথিবী – এক ঝলকে

নয়াদিল্লি : আমাদের বাসগ্রহ এই পৃথিবী। প্রতি মুহূর্তে পরিবর্তিত হয়ে যাচ্ছে তার স্বাভাবিক রূপ। এই পরিবর্তনের পেছনে রয়েছে নানা কারণ। রয়েছে নাগরিক জীবনের ক্রম বিকাশ, মানুষের ক্রিয়াকলাপ, আবহাওয়ার পরিবর্তন, প্রাকৃতিক বিপর্যয়। আবার এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ও নানা রূপে পৃথিবীর ওপর তার করাল থাবা বসিয়েছে। রয়েছে বন্যা, খরা, ধস, ভূমিকম্প, দাবানল ইত্যাদি। কিন্তু তা সত্ত্বেও পৃথিবী এত সুন্দর। পৃথিবীর এই পরিবর্তনের নানা দিক আমাদের সামনে তুলে ধরেছে নাসা। পৃথিবীর সুরক্ষার স্বার্থে আর আগামী দিনে যাতে মানুষ সচেতন হয় সে জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে নাসা। এই উদ্দেশ্যেই মহাকাশের নানা জায়গা থেকে নানা সময়ে ছবি তুলেছে সংস্থাটি। ছবিতে ধরা পড়েছে পরিবর্তনের নানা রূপ। আসুন দেখি…

আরও পড়ুন

লালগ্রহের ভেজা অবস্থা জীবাণুদের জন্য আদর্শ ছিল

লালগ্রহকে ঘিরে জল্পনার আর শেষ নেই। প্রায় রোজই তাকে নিয়ে নতুন নতুন তথ্য সামনে আসছে। আর বাড়ছে উত্তেজনার পারদ। সেখানে জল আছে কি না? জল থাকলে জীবনের কোনো সম্ভবনা আছে কি না? জাগছে এমন বহু প্রশ্ন। আর গবেষকরাও এই সবের উত্তর খোঁজার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। হালে পাওয়া তথ্য থেকে জানা যাচ্ছে, প্রাচীন যুগে মঙ্গল সিক্ত অবস্থায় ছিল।  তার সৃষ্টির প্রায় ১০০ কোটি বছর পরে সেখানে হ্রদ ও নদীর সৃষ্টি হয়। গ্রহটির এই পট পরিবর্তন তার জলবায়ু সম্বন্ধে জানতে সাহায্য করছে। এই পরিবর্তিত জলবায়ুর রূপরেখা দেখে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন সেই সময়ে মঙ্গলের আবহাওয়া জীবাণুর জন্ম ও বাঁচার পক্ষে আদর্শ…

আরও পড়ুন

পড়শি সৌরজগতের নতুন গ্রহে প্রাণের আশায় বিজ্ঞানীরা

বিগত ২০ বছরে মহাকাশবিজ্ঞানীরা প্রায় একশোটি গ্রহ মহাকাশের ইতিউতি আবিষ্কার করেছেন। ইউরোপিয়ান সার্দান অবজারভেটরি (ইএসও) ঘোষণা করেছে, পৃথিবীর মতো বাসযোগ্য আরও একটি গ্রহের সন্ধান তাঁরা পেয়েছেন। এই গ্রহটির যা উষ্ণতা, সেই কারণে এখানে জল থাকতে পারে বলে তাঁরা মনে করছেন। জল জীবনধারণের জন্য সব চেয়ে জরুরি বিশেষ উপাদান। এর থেকেই বিজ্ঞানীরা অনুমান করছেন, গ্রহটিতে প্রাণের উপস্থিতিও থাকতে পারে। এই গ্রহটির তাঁরা নাম দিয়েছেন প্রক্সিমা-বি। ‘প্রক্সিমা-বি’–র অস্তিত্ব আবিষ্কারের কথা ‘নেচার’ জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। প্রক্সিমা-বি-এর আয়তন পৃথিবীর আয়তনের সামান্য বেশি। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এটি পৃথিবীর চেয়ে মাত্র ১.৩ গুণ বড়।  এই নবাবিষ্কৃত গ্রহটি যে নক্ষত্রটিকে কেন্দ্র করে ঘুরছে তার নাম প্রক্সিমা সেন্টাউরি। এই…

আরও পড়ুন