khabor online most powerful bengali news

সুনীলের দুরন্ত ফ্রিকিক, এএফসি কাপের ম্যাচে হার বাগানের

sunil-chhetri

বেঙ্গালুরু এফসি-২(সন্তোষ, সুনীল)  মোহনবাগান-১ (কাতসুমি- পেনাল্টি) বেঙ্গালুরু: সেই একই খেলা। ক্লান্ত, আনফিট সবুজমেরুন। প্রথমার্ধটা তেড়েফুড়ে খেলা। দ্বিতীয়ার্ধে দাঁড়িয়ে যাওয়া। গোল খেয়ে গেলে আরও তাড়াতাড়ি। একটু চাপ পড়লেই বেরিয়ে পড়ছে ডিফেন্সের ফাঁক। সোনি কিছুটা খেলার চেষ্টা করছেন, বলবন্ত মন্দ না কিন্তু জেজে গত মরশুমের ছায়া। সব মিলিয়ে এএফসি কাপের গ্রুপ লিগের প্রথম ম্যাচে বেঙ্গালুরু এফসি-র কাছে হারল মোহনবাগান।  প্রথমার্ধে অনেক কিছুই ঠিকঠাক চলছিল সঞ্জয় সেনের ছেলেদের। ২২ মিনিটে বলবন্তের দারুণ হেড একটুর জন্য বাইরে গেল। ২৮ মিনিটে সোনির দারুণ পাস বক্সের মধ্যে রিসিভই করতে পারলেন না জেজে। এ সবের মধ্যেই ৩৫ মিনিটে বক্সের মধ্যে জেজের পাস ধরতে ছুটতে থাকা সোনিকে ফেলে…

আরও পড়ুন

১০ জনে খেলে কোনো মতে হার বাঁচাল মোহনবাগান

বেঙ্গালুরু: প্রথমে হার। তারপর পরপর দুটো ম্যাচ ড্র। আই লিগ থেকে ক্রমেই দূরে সরে যাচ্ছে সবুজমেরুন। এর পরেও যে ফিরে আসা যায় না, তা নয়। তবে, তার জন্য মোহনবাগানের জয়ে ফেরার পাশাপাশি খারাপ খেলতে হবে ইস্টবেঙ্গল, আইজলকে।  কিন্তু সে সব পরের কথা। মোহনবাগানের গোটা দলটাকেই অসম্ভব ক্লান্ত এবং ছন্দহীন দেখাচ্ছে গত কয়েকটা ম্যাচ ধরে।  এদিন সোনি বেশ নিষ্প্রভ থাকলেও, প্রথমার্ধটা ভালই খেলছিলেন বলবন্ত, প্রীতম কোটালরা। ২৭ মিনিটে কাতসুমির ফ্রিকিকে চমৎকার হেডও নিয়েছিলেন বলবন্ত। কিন্তু গোলকিপার দারুণ সেভ করলেন। ৩৪ মিনিটে প্রীতমের গড়ানো শট গোলের বাইরে গেল। ৪৩ মিনিটে ডাফির চেষ্টাও কাজে এল না। তবু মনে হচ্ছিল, এভাবে চললে, ৩ পয়েন্ট…

আরও পড়ুন

ফের পয়েন্ট খোয়াল মোহনবাগান, দুর্গম হচ্ছে আই লিগ জয়ের পথ

মোহনবাগান-২(প্রীতম, বলবন্ত)  মুম্বই এফসি-২(থই, ভিক্টোরিনো) কলকাতা: পয়েন্ট খোয়াল না লিখে, শিরোনামে ‘হার বাঁচাল বাগান’ও লেখা যেত। কিন্তু লেখা গেল না কারণ দ্বিতীয়ার্ধে জান লড়িয়ে দিয়েছিলেন সোনি, জেজে, কাতসুমি, বলবন্তরা। কয়েকটা ব্যাপার ঠিকঠাক হলে ম্যাচটা জিতেও যেতে পারত সঞ্জয় সেনের ছেলেরা। তাই ম্যাচের ৮৮ মিনিটে সোনির ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে বলবন্ত গোলটা শোধ করা সত্ত্বেও  বাগান পয়েন্ট খোয়ালই বলতে হচ্ছে। কিন্তু এসবই দ্বিতীয়ার্ধের কথা। টানা আক্রমণে মোহন ডিফেন্সকে দিশাহারা করে দেওয়ার পরও প্রথমার্ধের শেষে মুম্বই এফসি যে মাত্র ২-১ গোলে এগিয়ে ছিল, সেটা নিতান্তই কাকতালীয়। যেমন কাকতালীয় ম্যাচের ২০ মিনিটের মাথায় মুম্বইয়ের গোল শোধ। থই সিং দুর্দান্ত ফিটনেসের নমুনা দেখিয়ে যে ভলিটা…

আরও পড়ুন

পালটে যাওয়া চার্চিলের কাছে অপরাজিত তকমা খোয়াল বাগান

চার্চিল-২(ওলফ, লিংডো)    মোহনবাগান-১(প্রবীর) গোয়া: গত দু’ম্যাচে পালটে গেছে চার্চিল ব্রাদার্স। জানত সবুজমেরুন শিবির। তবু প্রথম থেকেই ম্যাড়মেড়ে খেলা বুঝিয়ে দিচ্ছিল দলটা ছন্দে নেই। তবু তার মধ্যেই ঝলক দেখাচ্ছিলেন সোনি।১৭ মিনিটে চার্চিলের গোলকিপার ঠিক সময়ে বেরিয়ে না এলে এগিয়ে যেত মোহনবাগান।২৩ মিনিটে সেই সোনির ক্রস থেকেই গোল করে দলকে এগিয়ে দিলেন প্রবীর দাস।তারপর সেই ম্যাড়মেড়ে খেলা। চার্চিল চেষ্টা করছিল। কিন্তু খেলার মান ছিল নিম্নমুখীই। দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হতেই পাল্টে গেল চার্চিল। আক্রমণ ভাগে ঝলমল করতে থাকলেন ওলফ, লিংডো-রা। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়েই যেন ম্যাচ থেকে হারিয়ে গেল সবুজমেরুন।৬৪ মিনিটে বাগান ডিফেন্সের দুর্বলতায় গোল শোধ করে দিলেন ওলফ। কিন্তু এডুর্য়াদো, শুভাশিস সেই…

আরও পড়ুন

এএফসি কাপ: মোহনবাগানকে আটকে দিল ভ্যালেন্সিয়া

মোহনবাগান- ১ (ডাফি) ভ্যালেন্সিয়া –  ১(ওমোদু) মালে: প্রথম দলের ৬ জন নেই। কোচ সঞ্জয় সেন নেই। উপায়ও ছিল না হয়তো। হাই ভোল্টেজ আই লিগের মাঝে বিদেশ-বিভুঁই ঘুরিয়ে দলকে ক্লান্ত করতে চাননি মোহনবাগান কর্তারা। অথবা হয়তো ভেবেছিলেন, দুর্বল ভ্যালেন্সিয়াকে তাদের ঘরের মাঠে হারাতে এই দলই যথেষ্ট। যদিও এদিন অ্যাওয়ে ম্যাচ বলে নিষ্চয় তেমন টের পাননি ডাফি, কতসুমি, শিলটনরা। কারণ গ্যালারি ছিল প্রায় পুরো ফাঁকা। ৬ মিনিটের মাথায় প্রবীর দাসের ফাইনাল পাস ধরে গোলও করে ফেলেন ডাফি। তারপর চলল বিরক্তিকর ফুটবল। মনে হচ্ছিল, মোহনবাগানেরও কিছু করার ইচ্ছা নেই আর গোল দেওয়ার ইচ্ছা নেই ভ্যালেন্সিয়ার। এসবের মধ্যেই ৭২ মিনিটে পেনাল্টিতে গোল শোধ করে…

আরও পড়ুন

দুরন্ত বলবন্ত, শিবাজিয়ানসকে হারিয়ে জয়ের রাজপথে ফিরল সবুজমেরুন

মোহনবাগান-৩ (বলবন্ত ২, কাতসুমি ১-পেনাল্টি)  ডিএসকে শিবাজিয়ানস-১  (মিলন সিং)            কলকাতা: গত বারের আই লিগে অ্যাওয়ে ম্যাচের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ৩-২ এগিয়ে থেকেও পয়েন্ট খোয়াতে হয়েছিল। এবারেও অ্যাওয়ে ম্যাচে আটকে দিয়েছে শিবাজিয়ানরা। তার ওপর পরপর দুটো ম্যাচ ড্র করে বেশি কিছুটা চাপে সবুজমেরুন শিবির। সনির চোট। দলটাও ছন্দে নেই। ক্লান্তির ছাপ স্পষ্ট।  সব মিলিয়ে বহু প্রতিবন্ধকতা নিয়ে রবীন্দ্র সরোবরে নেমেছিল সঞ্জয় সেনের ছেলেরা। খেলার শুরু থেকেও যেন গত মুম্বই এফসি ম্যাচের মোহনবাগান। জঘন্য ফুটবল। সনি নিষ্প্রভ। ডাফি, কাতসুমি কিছুটা চেষ্টা করছেন, যেমন করেন। ডিফেন্সে কোনো বোঝাপড়া নেই। ১৯ মিনিটের মাথায় অনেকটা ফাঁকা জমি আর দেবজিতকে একা…

আরও পড়ুন

গোলশূন্য ড্রয়ের শিলিগুড়িতে খলনায়ক মাঠই

শিলিগুড়ি: ৭৫ মিনিটের মাথায় জেজে-কে তুলে বলবন্তকে নামালেন সঞ্জয় সেন। উপায় ছিল না। পুরোটাই নিষ্প্রভ ছিলেন জেজে। কিন্তু ৪৩ মিনিটের মাথায় যদি গোলের সামনে থেকে শটটা নিতে পারতেন তিনি। তাহলে হয়তো এদিনের নায়ক হিসেবে তাঁর নামই লেখা হতো। কিন্তু পারেননি, কারণ মাঠের অসমান বাউন্স। পুরো ম্যাচ জুড়ে বারবার বল ধরতে অসুবিধায় পড়েছেন খেলোয়াড়রা। দৌড়তে দৌড়তে পড়ে গেছেন। কারণ ওই মাঠ। বড়ো ম্যাচের আবেগ দর্শকদের বিষয়। কিন্তু সেই আবেগকে মর্যাদা দেওয়ার দায় তো শুধু খেলোয়াড়দের নয়, ক্রীড়া প্রশাসনের কর্তাদেরও। এই সমস্যা না মিটলে ভারতীয় ফুটবল এক কদমও এগোবে না। তা সে ফিফা যতই ৪৮ দলের বিশ্বকাপ করুক। এবার খেলার কথা। ম্যাচের…

আরও পড়ুন

বিনোদনে ভরা ম্যাচ জিতে মাতিয়ে দিল সবুজমেরুন

মোহনবাগান-৩      আইজল এফসি-২ কলকাতা: নাটকে ভরা ম্যাচ জিতে ফের তিন পয়েন্টের রাজপথে পা ফেলল সঞ্জয় সেনের ছেলেরা। কোনো সন্দেহ নেই ভিনরাজ্যের দলটাই এদিন অনেকটা প্রাধান্য রেখে খেলল রবীন্দ্র সরোবরে। কিন্তু মোহনবাগান একে বড়ো টিম। তার উপর সময় মতো গোলগুলোও পেয়ে যেতে ৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট হয়ে গেল কাতসুমিদের। খেলার 1 মিনিটে এবারের আই লিগের প্রথম গোলটা করে দলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন ডাফি। বারবার আক্রমণ শানালেও কিংবা সুযোগ তৈরি করলেও অনেকক্ষণ গোলটা শোধ করতে পারেনি খালিদ জামিলের ছেলেরা। 41 মিনিটে ডিফেন্সের ফাঁক দিয়ে গোল করে সমতা ফেরালেন জয়েস রানে। তারপর ৬৩ মিনিট। মিজোরামের দলের বিরুদ্ধে জ্বলে ওঠেন তিনি কথা দিয়েছিলেন, কথা রাখলেন…

আরও পড়ুন

থামল জয়ের দৌড়, শিবাজিয়ান্সের কাছে পয়েন্ট খোয়াল মোহনবাগান

পুনে: এএফসি কাপ খেলতে শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগে মেজাজটা ফুরফুরে রাখতে পারলেন না সঞ্জয় সেনের ছেলেরা। টানা ৪ ম্যাচ জয়ের সোনার দৌড় থেমে গেল আই লিগের পিছনের সারির দল ডিএসকে শিবাজিয়ান্সের সামনে। টানা চার ম্যাচ জিতে কিছুটা আত্মতুষ্টই হয়েতো ছিলেন কাতসুমিরা। কাতসুমি, সোনি কিছুটা চেষ্টা করলেন কিন্তু ঝাঁঝ ছিল না। ডিফেন্স নিয়ে চিন্তাটা ধরা পড়েছিল আগের দিনই। এদিন যেন আরও বাড়ল। প্রথমার্ধে ২ গোলের সুযোগ নষ্ট করল পুনের দল। তার মধ্যে ৩৮ মিনিটে সংইয়ং দেবজিতকে একা পেয়েও  তেকাঠিতে রাখতে পারলেন না বল। দেবজিত এগিয়ে এসে গোলের মুখ ছোটো করে দিয়েছিলেন বটে, তাও গোলটা হওয়াই উচিত ছিল। নড়বড়ে খেলতে খেলতেও গোলের সুযোগ…

আরও পড়ুন

পিছিয়ে পড়েও প্রথম অ্যাওয়ে ম্যাচে জয় পেল সবুজমেরুন

   মোহনবাগান-২            চেন্নাই সিটি-১    (জেজে, সোনি)            (ট্যাঙ্ক) চেন্নাই: কয়েকটা মুহূর্ত বাদে কখনোই মনে হয়নি মোহনবাগান ম্যাচটা হারতে বা ড্র করতে পারে। কিন্তু ম্যাচের ৫২ মিনিটে গতির বিরুদ্ধে গোল করে দিলেন চেন্নাই সিটির ২৩ বছর বয়সি ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ট্যাঙ্ক। প্রথমার্ধে যেভাবে ডিফেন্সে লোক বাড়িয়ে সবুজমেরুনকে রুখে দিয়েছিল অনভিজ্ঞ চেন্নাই সিটি, সেটা মনে করে নিশ্চয় রক্তচাপ বেড়ে গিয়েছিল বেঙ্গালুরু থেকে প্রিয় দলের খেলা দেখতে আসা ৭০-৭৫ জন সবুজমেরুন সমর্থকের। তবে চাপ নামতেও সময় লাগেনি। ৪ মিনিট পরেই ডাফির শটে ফ্লিক করে সমতা ফেরান জেজে। গত ম্যাচে দু’গোলের পর এদিন আবার। তারপরই…

আরও পড়ুন