khabor online most powerful bengali news

পুজোয় সোহম আর আবীর খিচুড়ি অবশ্যই খাবেন

বছরের কোনো দিনই ডায়েট মেনে খাবার খান না আবীর চট্টোপাধ্যায়।  তাই পুজোয় খাওয়াদাওয়া নিয়ে ‘নো চাপ’, বললেন আবীর। পুজোর চারটে দিন জমিয়ে খাওয়াদাওয়া করবেন ব্যোমকেশ ওরফে আবীর। ঠিক তেমনই খাওয়াদাওয়া নিয়ে বরাবরই বেশ রসিক অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী। তিনিও যে খুব একটা ডায়েট মেনে চলেন, তা একেবারেই না। তাই পুজোর দিনগুলিতে তো ‘কোনো কথাই হবে না’। পুজোয় খিচুড়িও বাদ দেবেন না আবীর। কারণ পুজোর একটা দিন খিচুড়ি না হলেই নয়! তাই পুজোয় এবছর জমিয়ে পেটপুজো করবেন টলিপাড়ার ব্যস্ততম অভিনেতা আবীর চ্যাটার্জি। আর সোহম ছেলেবেলা থেকেই ভোগের খিচুড়ি খেতে বেশ পছন্দ করেন। তাই প্রতিবারই চেষ্টা করেন পুজোর একটা দিন খিচুড়ি খাওয়ার। এবারও…

আরও পড়ুন

পুজোর ভোগ থেকে বিপর্যয়ের আহার

পাপিয়া মিত্র   খিচুড়ি শব্দটা শুনলেই মনে হয় সব যেন গণ্ডগোল হয়ে গেল। হবে নাই-বা কেন? সেই তো কবেকার কথা। বড়োদের ফেলে রাখা কাজে হাত দেওয়া মানেই খিচুড়ি পাকিয়ে দেওয়া আর পিঠে দুমদুমাদুম পড়া। কিন্তু এই শব্দটাই যে আমাদের কত বিপদ থেকে মান বাঁচিয়েছে তা বলে শেষ করা যাবে না। সব শ্রেণির অন্দরে এই শব্দের নানা ধরনের আপ্যায়ন। তাই ধোঁয়া ধোঁয়া ঝড়বাদলে এর উপস্থিতি ঠিক মুশকিল আসানের মতো। বাসি-টাটকা, পাতলা-চাপচাপ, কাজুকিসমিস-আলুপেঁয়াজ, মশলাযোগে না মশলাহীন ডালচাল সেদ্ধ – সে যে কী মনোরম স্বাদে-আহ্লাদে রাত্রি যাপন করিয়ে দিত তা আজ ভাবলে বড়ো মন খারাপ হয়ে যায়। আমরা সবাই রাজা আমাদের এই রাজার…

আরও পড়ুন