khabor online most powerful bengali news

ভাবসাগর পাড়ে গঙ্গাসাগর

শক্তি চৌধুরী এসপ্ল্যানেড বিধান মার্কেটের উলটো দিকের বাসস্ট্যান্ড থেকে সকাল সাড়ে ছ’টার বাসের টিকিটটায় সিট নম্বর দেখে নিজেকে বেশ নিশ্চিন্ত লাগল, যাক বসতে পাওয়াটা পাকা। কিন্তু এ কী গেরো! বাসে উঠে দেখি আমার জায়গায় পরম নিশ্চিন্তে বসে এক বিহারি দম্পতি গল্পগুজবে মত্ত। মেজাজটা সক্কাল সক্কাল গেল বিগড়ে। “ইয়ে হমারা সিট হায়, আপলোগ সিট ছোড়ো”, যেন মহাত্মা গান্ধী ইংরেজকে ভারত ছাড়তে বলছেন এ রকম একটা সুরে হুঙ্কার ছাড়লাম। আমার মেজাজ দেখে ওঁরা তাড়াতাড়ি সরে পড়লেন। পরে বুঝতে পারলাম ওঁরা বুঝতেই পারেননি যে আগে থেকে টিকিট কাটতে হয়। এই উপাখ্যানটা না বললেও চলত, কিন্তু বললাম আপনাদের এই ধারণা দেওয়ার জন্য যে গঙ্গাসাগরে…

আরও পড়ুন

গঙ্গাসাগর মেলাযাত্রীদের জন্য ‘হ্যাম রেডিও কন্ট্রোল ক্যাম্প’ বাবুঘাটে

কলকাতা : এ রকম গল্প প্রায়ই শোনা যায়। দুই ছেলেকে নিয়ে মা হয়তো গঙ্গাসাগরের মেলায় গেছেন। এক ছেলে গেল হারিয়ে। তাকে না পেয়ে মা আরেক ছেলেকে নিয়েই ফিরে এলেন। তার পর কেটে গেল বহু বছর। হারানো সন্তানকে আর পাওয়া গেল না, কিংবা হঠাৎ ফিরে পাওয়া গেল সেই সন্তানকে। গল্পে না, বাস্তবেও এ রকম ঘটনা কিছু কিছু ঘটে। তবে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে মেলা থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা অনেকটাই কমে গেছে। আর এখন সেই আশঙ্কা আরও কমিয়ে দিয়েছে ‘হ্যাম রেডিও কন্ট্রোল ক্যাম্প’। হারিয়ে যাওয়া তীর্থযাত্রীদের সাহায্যের জন্য এই শিবির। খোলা হয়েছিল কলকাতার বাবুঘাটে। ‘সব তীর্থ বার বার, গঙ্গাসাগর একবার’। শেষ হল…

আরও পড়ুন

গঙ্গাসাগরের পথে বাবুঘাটে

১৪ জানুয়ারি শনিবার মকর সংক্রান্তি। গঙ্গাসাগর মেলায় যাওয়ার জন্য বিভিন্ন রাজ্য থেকে পুণ্যার্থীরা কলকাতায় আসতে শুরু করেছেন। সেই সঙ্গে আসছেন সাধুরাও। জড়ো হচ্ছেন গঙ্গার ধারে।  তাঁদের জন্য অস্থায়ী শিবির বসেছে গঙ্গার ধারে বাবুঘাটে। তাঁদের খাওয়াদাওয়া, অন্যান্য প্রয়োজনের দিকে নজর রাখছেন স্বেচ্ছাসেবকরা। সাধুরাও এই ফাঁকে এন্তার আশীর্বাদ বিলিয়ে যাচ্ছেন। ছবি : রাজীব বসু

আরও পড়ুন

স্টেপ আউট করে পশ্চিমবঙ্গে ছক্কা হাঁকানোর অপেক্ষায় শীত

কলকাতা: এ বারের শীতটা বড়োই লাজুক। কিছুতেই থিতু হতে পারছে না সে। যখনই তাপমাত্রা কমার ইঙ্গিত দিচ্ছে তখনই আবার ধাক্কা খাচ্ছে সে। কিন্তু এ বার আর নয়, একেবারে ছক্কা হাঁকিয়ে প্রত্যাবর্তন করবে শীত। রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সোমবার সেটা দু’ডিগ্রি বেড়েছে। এর নেপথ্যে রয়েছে উত্তর ভারতের সেই পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি যার প্রভাবে কাশ্মীর-হিমাচল-উত্তরাখণ্ডে প্রবল তুষারপাত হয়েছে। সেই ঝঞ্ঝা এখন ক্রমশ সরে এসে উওরপ্রদেশ-বিহার লাগোয়া অঞ্চলে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে মঙ্গলবার বিহার আর গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় হাল্কা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতাতেও দু’এক ফোঁটা বৃষ্টি হতে পারে। বুধবার থেকে ক্রমশ পরিষ্কার হতে শুরু করবে আবহাওয়া, ঢুকে পড়বে হিমশীতল…

আরও পড়ুন