khabor online most powerful bengali news

ভারতে ইবে-র ব্যবসা কিনে নিচ্ছে ফ্লিপকার্ট: রিপোর্ট

নয়াদিল্লি: ভারতের ই-কমার্স শিল্পে নতুন মোড়। দুনিয়ার সবচেয়ে বড়ো ই-কমার্স সংস্থা ইবে-র ভারতের ব্যবসা কিনে নিতে চলেছে ফ্লিপকার্ট। অতি সম্প্রতি নতুন করে ১ বিলিয়ন ডলার (সাড়ে ছ হাজার কোটি টাকারও বেশি) বিনিয়োগ পেয়েছে ফ্লিপকার্ট। মাইক্রোসফট, টেনসেন্টের মতো সংস্থা সেখানে বিনিয়োগ করেছে। তারপরই এই খবর। কেনাবেচার পুরো শর্ত এখনও জানা যায়নি। তবে শোনা যাচ্ছে, গোটা লেনদেনটাই হচ্ছে বিনা পয়সায়। ২০০৪ সালে ভারতে পথ চলা শুরু করে ইবে। কিন্তু কখনওই তারা এ দেশে সেভাবে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি। ফ্লিপকার্ট, আমাজন, স্ন্যাপডিলের মোতো সংস্থা কাজ শুরু করার পর, ইবে তাদের পেছনে পড়ে গেছে। এমনকি এমনও শোনা যায়, শপক্লুজ আর পেটিএম-এরও পেছনে রয়েছে ইবে।…

আরও পড়ুন

লক্ষ্য ব্যবসায়িক লাভ, ছ’শো কর্মীকে ছাঁটাই করছে স্ন্যাপডিল

নয়াদিল্লি: ব্যবসায়িক লাভের উদ্দেশ্যে প্রায় ছ’শো কর্মীকে ছাঁটাই করার পথে হাঁটল ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম ই-কমার্স সংস্থা স্ন্যাপডিল। সপ্তাহখানেক হল ই-কমার্স, লজিস্টিক্স এবং পেমেন্ট বিভাগে কর্মী ছাঁটাই শুরু করে দিয়েছে তারা। আরও দিনকয়েক এই কর্মী ছাঁটাইয়ের কাজ চলবে। ই-কমার্স সংস্থা ফ্লিপকার্ট এবং অ্যামাজনের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে, নতুন করে কোনো বিনিয়োগ আসছে না, এমনই দাবি স্ন্যাপডিলের। লাভের মুখ দেখার জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপও করেছে এই সংস্থা, যার ফলে তাদের ডেলিভারি মূল্য কমেছে প্রায় ৩৫ শতাংশ। কর্মী ছাঁটাইয়ের ব্যাপারটা এড়িয়ে সংস্থার লাভের কথাই উল্লেখ করেন এক মুখপাত্র। তাঁর কথায়, “আমাদের লক্ষ্য দু’বছরের মধ্যে ভারতের প্রধান লাভজনক ই-কমার্স সংস্থা হব। এর জন্য…

আরও পড়ুন

অ্যামাজন শুধুই তাদের অনুকরণ করছে, অভিযোগ ফ্লিপকার্টের

বেঙ্গালুরু: দেশের বাজারে ভারতীয় ই-কমার্স সংস্থা ফ্লিপকার্টের সঙ্গে ক্রমশই রেষারেষি বাড়ছে আন্তর্জাতিক প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যামাজনের। সপ্তাহ খানেক আগেই অ্যামাজন তাদের ভারতীয় ইউনিটে বিনিয়োগ করেছে ২০১০ কোটি টাকা। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ফ্লিপকার্টকে টেক্কা দিতেই এই বিশাল অঙ্কের লগ্নি। দিন কয়েকের মধ্যেই  ফ্লিপকার্টের পক্ষ থেকে আক্রমণ করা হল অ্যামাজনকে। ভারতীয় ই-কমার্স সংস্থার অভিযোগ, অ্যামাজন শুধুই তাদের অনুকরণ করে থাকে। ফ্লিপকার্টের বিজ্ঞাপন এবং বাণিজ্যিক বিভাগের প্রধান কল্যাণ কৃষ্ণমূর্তি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, “আমাদের ‘বিগ বিলিয়ন ডে’-র ধারণা থেকে শুরু করে ব্যাঙ্ক অফার সব কিছুই অনুকরণ করে অ্যামাজন। নয়তো অপেক্ষা করে, কখন অন্য কোনো কেউ এসে কী করতে হবে, বলে দেবে। এই ভাবে বাজারে শুধু টাকা…

আরও পড়ুন

বাচ্চাদের শীতের লেটেস্ট কালেকশনগুলো কি দেখেছেন

হেমন্ত চলছে। মাঝে সাঝে হানা দিচ্ছে হিমেল হাওয়া। আর এটাই বোধহয় শীতের শপিং শুরু করার সঠিক সময়। কিন্তু ঠিক সেই সময় ৫০০ আর ১০০০ টাকার নোট বাতিল নিয়ে দারুণ বিভ্রান্তি। পর্যাপ্ত খুচরো টাকার অভাবে বিকি-কিনি বেহাল। কিন্তু শীত পড়ার আগেই বাচ্চাদের জন্য গরম পোশাক মজুত করাটাও তো খুবই জরুরি। ভাবছেন তো কী ভাবে করবেন কেনা কাটা। ভাবনার কোনও কারণ নেই। রয়েছে তো অন লাইন শপিং করার নানা পোর্টাল। আপানাদের জন্য রইল তেমননি কিছু বাচ্চাদের শীতের পোশাকের হদিশ।

আরও পড়ুন

ফ্লিপকার্টে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের পথে ওয়ালমার্ট

ফ্লিপকার্টের ছোট অংশীদার হতে চলেছে ওয়ালমার্ট। কথাবার্তা এগিয়ে গিয়েছে অনেকদূর। আমাজনের সঙ্গে দুই সংস্থার লড়াইয়ের পরিপ্রেক্ষিতেই এই জোট হতে চলে চলেছে বলে মনে করছে বাণিজ্য মহল। ফ্লিপকার্ট ভারতের এক নম্বর ই-কমার্স সংস্থা আর ওয়ালমার্ট দুনিয়ার এক নম্বর ফুচরো ব্যবসায়ী। সূত্রের খবর, চুক্তির খুঁটিনাটি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। কথাবার্তা এখনও বাকি। গোটা ব্যাপারটাই গোপন রেখেছে দুই সংস্থা। গবেষণা সংস্থা সিবি ইনসাইটের হিসেবে ফ্লিপকার্টের বর্তমান মূল্য ১৬০০ কোটি মার্কিন ডলার। আমাজন সেখানে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে চায়। ফ্লিপকার্ট ভারতের ই-কমার্স বাজারে এক নম্বর হলেও তাদের ঘাড়ের কাছেই নিঃশ্বাস ফেলছে আমাজন। গত জুন মাসে সংস্থার পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে তারা ভারতে খুর…

আরও পড়ুন

আর্থিক ক্ষতির মুখে বেঙ্গালুরুর আইটি কোম্পানিগুলি, শান্তির আর্জি মোদীর

কাবেরীর জলবণ্টন ইস্যুতে ছড়িয়ে পড়া হিংসা সরাসরি প্রভাব ফেলেছে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি রাজধানী বেঙ্গালুরুতে। বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে শহরের তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানিগুলি। তথ্যপ্রযুক্তি কেন্দ্রগুলি তাদের কর্মচারীদের তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিচ্ছে। এমনকি বাড়িতে থেকেও কাজ করলে অসুবিধা নেই, তা-ও বলছে কোম্পানিগুলি। হিংসার জেরে বিশাল ভাবে ব্যাহত হচ্ছে অনলাইন কেনাকাটার দুই পথিকৃৎ কোম্পানি অ্যামাজন আর ফ্লিপকার্টের পরিষেবা। অ্যামাজনের তরফে বলা হয়েছে, “বেঙ্গালুরুর হিংসার জেরে আমাদের জিনিসপত্র ডেলিভারি ব্যাহত হচ্ছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই আবার ডেলিভারি শুরু হবে”। অন্যদিকে, ফ্লিপকার্টের তরফে বলা হয়েছে, “এখনও পর্যন্ত আমরা ডেলিভারি বন্ধ রেখেছি, কারণ আমাদের কাছে ডেলিভারির থেকে কর্মচারীদের নিরাপত্তাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ডেলিভারিতে কতটা দেরি হবে সেই ব্যাপারে…

আরও পড়ুন