khabor online most powerful bengali news

ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের, জাতি-ধর্ম-বর্ণের ভিত্তিতে
চাওয়া যাবে না ভোট

নয়াদিল্লি: ঐতিহাসিক রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। কোনো ব্যক্তি বা দল জাতি, ধর্ম, বর্ণের ভিত্তিতে মানুষের কাছে ভোট চাইতে পারবে না। হিন্দুত্ব সংক্রান্ত এক মামলায় সোমবার এই রায় দিয়েছে শীর্ষ আদালত। আদালত সাফ জানিয়ে দিয়েছে, এ ভাবে ভোট চাওয়া বেআইনি। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, নির্বাচন একটি ধর্মনিরপেক্ষ প্রক্রিয়া। সে ক্ষেত্রে জনগণের কাছে ভোট চাইতে হলে তাতে ধর্ম, বর্ণ বা জাতির রং মেশালে চলবে না। এই মামলায় আদালত আরও জানিয়েছে, ধর্ম এবং মানুষের মধ্যে সম্পর্কটা একেবারেই ব্যক্তিগত পছন্দের ব্যাপার। এতে রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ একেবারেই বাঞ্ছনীয় নয়। গত বছর অক্টোবর মাস থেকে এই মামলায় একাধিক আবেদনকারীর বক্তব্য শোনার পর সাত সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ এই রায়…

আরও পড়ুন

♦ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভোটে থাকছে সিসিটিভির ব্যবস্থা

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ টি ক্যাম্পাসে ছাত্র ভোটের দিন ঘোষণা হল বৃহস্পতিবার। ২৮ জানুয়ারি ঠিক হয়েছে ভোটের দিন। ৭ টি ক্যাম্পাসে আলাদা আলাদা ভাবে ভোট হলেও ভোট গণনা হবে কেন্দ্রীয় ভাবে। অনলাইনে তোলা যাবে নমিনেশন ফর্ম, যদিও ফর্ম জমা দেওয়ার ব্যবস্থা থাকছে শুধুমাত্র কলেজস্ট্রিট ক্যাম্পাসেই। ভোট দিতে গেলে অথবা প্রার্থী হতে গেলে, দু’ক্ষেত্রেই ন্যুনতম ৫৫% উপস্থিতির হার বাধ্যতামুলক। ভোটের দিন প্রতিটি ক্যাম্পাসেই বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। থাকছে সিসিটিভির ব্যবস্থা। এছাড়া পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হবে ক্যাম্পাসগুলোতে।

আরও পড়ুন

ভারতে ভোটদান বাধ্যতামূলক করার পক্ষে সওয়াল রাজ্যপালের

ঐকান্তিক ভাবে চেষ্টা করলে আমাদের দেশে ভোটদান বাধ্যতা মূলক করা সম্ভব।  রবিবার নন্দন ২ পেক্ষাগৃহে আকাশবাণী আয়োজিত ড. রাজেন্দ্র প্রসাদ স্মৃতি বক্তৃতায় মন্তব্য করলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। তাঁর বক্তব্যে রাজ্যাপাল বলেন, ভারতের জনপ্রতিনিধিত্ব আইনে ভোটদান বাধ্যতামূলক নয়, তাই তা করা যাচ্ছে না। তবে যারা ব্যবহারিক দিক থেকে বাধ্যতামূলক ভোটদান অসম্ভব মনে করেন, তাঁদের সঙ্গে সহমত নন কেশরী। এই প্রসঙ্গে তিনি পৃথিবীর যে সব দেশে ভোটদান বাধ্যতামূলক সেগুলির উল্লেখ করেন। ভোট না দিলে ভারতেও আর্থিক জরিমানার ব্যবস্থা করা যেতে পারে বলেও এদিন মন্তব্য করেন রাজ্যপাল। সাধারণ মানুষের রাজনৈতিক সচেতনতার অভাব এবং পছন্দসই প্রার্থী না পাওয়ার জন্যই সকলে ভোট দেন না বলে…

আরও পড়ুন

মন্দিরে দীপাবলি উদ্‌যাপন ডোনাল্ড ট্রাম্পের পুত্রবধূর

তিনি যদি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন, তাহলে ভারত ও আমেরিকা অত্যন্ত ‘ঘনিষ্ঠ বন্ধু’ হয়ে উঠবে এবং এক সঙ্গে ‘দুর্দান্ত ভবিষ্যৎ’ তৈরি করবে। ভারতীয়-মার্কিনদের এক সভায় প্রচারে গিয়ে কয়েকদিন আগেই বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই প্রচারকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে ভার্জিনিয়ার এক হিন্দু মন্দিরে দীপাবলি উদ্‌যাপন করলেন ট্রাম্পের পুত্রবধূ লারা ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের হিসেব নিকেশে ভার্জিনিয়া বরাবরই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।     ট্রাম্পের দ্বিতীয় ছেলে এরিক ট্রাম্পের স্ত্রী বলেন, তাঁর শ্বশুর যদি ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে জয়ী হন, তাহলে ভারত ও আমেরিকার সম্পর্ক এক নতুন উচ্চতায় পৌঁছবে। ভারত ও সেখানকার মানুষের প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের গভীর ভালোবাসা…

আরও পড়ুন

অনশন ভাঙছেন শর্মিলা চানু, ভোটে লড়বেন

১৬ বছর পর অনশন ভাঙতে চলেছেন ইরম শর্মিলা চানু। শুধু তা-ই নয়, শর্মিলা এ বার মণিপুরের নির্বাচনেও লড়বেন। মঙ্গলবার ইম্ফলের এক স্থানীয় আদালতে হাজিরা দেওয়ার পর বাইরে বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের শর্মিলা বলেন, “এখন বিশ্বাস করি অনশন করে আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি পূরণে বাধ্য করা যাবে না। কিন্তু লড়াই আমি চালিয়ে যেতে চাই। তাই ৯ আগস্ট অনশন ভেঙে রাজনীতিতে যোগ দেব।”   সশস্ত্র বাহিনী বিশেষ ক্ষমতা আইন তথা ‘আফস্পা’ তুলে নেওয়ার দাবিতে ২০০০ সাল থেকে শর্মিলা অনশন চালাচ্ছেন। ওই বছরের নভেম্বরে মালম শহরে আসাম রাইফেলসের গুলিতে ১০ জন অসামরিক ব্যক্তি মারা যান। এঁদের মধ্যে এমন এক জন ছিলেন যিনি জাতীয় শিশু সাহসিকতা পুরস্কার…

আরও পড়ুন

‘এখানে যাও, সেখানে যাও, লাইন লাগাও, লাইন লাগাও’

শম্ভু সেন তিন মাথার মোড়টা একেবারে শুনশান। রাস্তাঘাটে গাড়িঘোড়া নেই বললেই চলে। দু’-একটা সরকারি বাসের টিকি মাঝেমধ্যে দেখা যাচ্ছে। দোকানপাট প্রায় সব বন্ধ। বন্‌ধের চেহারা। হবে না, আজ যে ভোটের দিন। হ্যাঁ, পঞ্চম দফা তথা ষষ্ঠ দিনের ভোটে আমাদের শিকে ছিঁড়েছে। যাই হোক, ভোটের দফারফা হয়নি। নির্বিঘ্নে ভোটটা দিয়ে ওই তেমাথা মোড়ে। না, না, যা ভাবছেন তা নয়। ভোট দেখতে নয়। আসলে সক্কাল সক্কাল মাভৈ বলে বেরিয়ে পড়েছিলাম পবিত্র গণতান্ত্রিক কর্তব্যটি সমাধা করতে। তাই প্রাতরাশে খ্যাঁটনের ব্যবস্থা হয়নি। সেই উদ্দেশ্যেই বেরিয়ে পড়া। আটসকালে এই তিন মাথার মোড়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী সদাজাগ্রত। কারণ কাছেপিঠেই একটা প্রাইমারি স্কুল রয়েছে। সেখানে নিশ্চয়ই ভোটের বুথ…

আরও পড়ুন

যথারীতি অশান্তির মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে চতুর্থ দফার ভোট

খবর অনলাইন:  পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের পঞ্চম দিনে চতুর্থ দফাতেও ব্যাপক অশান্তি হল। আজ সোমবারের নির্বাচনপর্বে ৪৯টি আসনে ভোট নেওয়া হল। উত্তর ২৪ পরগণার ৩৩টি এবং হাওড়ার ১৬টি কেন্দ্রে ভোটপর্ব চলে। ভোট শুরু হওয়ার অনেক আগে থেকেই বিভিন্ন বুথে ভোটারদের লম্বা লাইন নজর কাড়ে। এই পর্বের ভোট নির্বিঘ্ন করতে নির্বাচন কমিশন নানা ব্যবস্থা নিয়েছে। তাদের কড়া নজরদারির মধ্যেই অবশ্য বেশ কিছু গণ্ডগোলের খবর পাওয়া গিয়েছে। বেশিরভাগ অভিযোগই শাসকদলের বিরুদ্ধে — বিরোধীদের এজেন্টদের বাধা দেওয়া, তাঁদের বুথে বসতে না দেওয়া, বুথ থেকে বার করে দেওয়ার অভিযোগ। উত্তর দমদমে সিপিএম প্রার্থী তন্ময় ভট্টাচার্যের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে শাসকদলের বিরুদ্ধে। সব চেয়ে বড়ো অভিযোগ…

আরও পড়ুন

ভোট দেওয়া কি আইন করে বাধ্যতামূলক করা যায় ?

কানহাইয়া কুমারের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগকে কেন্দ্র করে উত্তাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে একটা ছোট্ট খবর হয়তো অনেকের দৃষ্টি এড়িয়ে গিয়েছে। খবরটি হল, নির্বাচনে ভোট দেওয়া বাধ্যতামূলক করতে চেয়ে সংসদে পেশ করা একটি বেসরকারি বিল প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। অনেকেই বলবেন, বিল তো প্রত্যাহার হয়ে গিয়েছে, তা হলে এ নিয়ে আর আলোচনার কী আছে ? কিন্তু প্রশ্ন হল, দেশের কোনও কোনও প্রান্তে গত কয়েক বছর ধরে ভোটদান বাধ্যতামূলক করার চেষ্টা হচ্ছে। ভোট দেওয়া কি আদৌ আইন করে বাধ্যতামূলক করা যায় ? এটা কি ভারতীয় সংবিধানে প্রদত্ত মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী নয় ? বাধ্যতামূলক ভোটদান সংক্রান্ত বিলটি লোকসভায় পেশ করেন বিহারের মহারাজগঞ্জ থেকে নির্বাচিত…

আরও পড়ুন