khabor online most powerful bengali news

ব্রাত্য নয় প্লুটো, তাকেও গ্রহের মর্যাদা দেওয়া উচিত বলছে গবেষণা

ওয়াশিংটন : ‘একে চন্দ্র, দু’য়ে পক্ষ’ – এই পাঠের লাইন ভেঙে ছিল কয়েক বছর আগেই। নির্দ্বিধায় বলা যেত না ‘নয়ে নবগ্রহ’। ২০০৬ সালে এক দল মহাকাশবিজ্ঞানী ঘোষণা করেন প্লুটো নাকি গ্রহ নয়। কিন্তু সৌরজগতের অন্য গ্রহদের মতো প্লুটোকেও গ্রহের মর্যাদা দেওয়া উচিত। তাকে পদচ্যুত করা হয়েছে ভুল করে। এমনই বললেন আমেরিকার জন্স‌ হপকিনস বিশ্ববদ্যালয়ের মহাকাশবিজ্ঞানী কিরবি রুনিয়ন। তাঁর মতে, পাথুরে বরফাবৃত প্লুটোও গ্রহ। সৌরজগতে গ্রহ পরিবারের সব থেকে ছোটো সদস্য সে। প্লুটোর পরিসর চাঁদের চার ভাগের তিন ভাগ। আর পৃথিবীর ৫ ভাগের এক ভাগ। এর ভূপৃষ্ঠে যা কিছু ঘটে চলেছে তার সবটাই গ্রহের মতোই। সেখানে অ-গ্রহ জাতীয় কোনো কিছু ঘটেনি। গ্রহের…

আরও পড়ুন

কেমন ভাবে বদলাচ্ছে পৃথিবী – এক ঝলকে

নয়াদিল্লি : আমাদের বাসগ্রহ এই পৃথিবী। প্রতি মুহূর্তে পরিবর্তিত হয়ে যাচ্ছে তার স্বাভাবিক রূপ। এই পরিবর্তনের পেছনে রয়েছে নানা কারণ। রয়েছে নাগরিক জীবনের ক্রম বিকাশ, মানুষের ক্রিয়াকলাপ, আবহাওয়ার পরিবর্তন, প্রাকৃতিক বিপর্যয়। আবার এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ও নানা রূপে পৃথিবীর ওপর তার করাল থাবা বসিয়েছে। রয়েছে বন্যা, খরা, ধস, ভূমিকম্প, দাবানল ইত্যাদি। কিন্তু তা সত্ত্বেও পৃথিবী এত সুন্দর। পৃথিবীর এই পরিবর্তনের নানা দিক আমাদের সামনে তুলে ধরেছে নাসা। পৃথিবীর সুরক্ষার স্বার্থে আর আগামী দিনে যাতে মানুষ সচেতন হয় সে জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে নাসা। এই উদ্দেশ্যেই মহাকাশের নানা জায়গা থেকে নানা সময়ে ছবি তুলেছে সংস্থাটি। ছবিতে ধরা পড়েছে পরিবর্তনের নানা রূপ। আসুন দেখি…

আরও পড়ুন

১৩-১৪ নভেম্বরের পূর্ণিমায় দেখুন সুপার ‘সুপারমুন’

মহাকাশের এদিক ওদিক অনেক ঘটনাই ঘটে চলেছে নিয়ত। তার মধ্যে সামান্য কিছুই আমাদের নজরে আসে। এবার যা ঘটতে চলেছে তা ১৯৪৮ সালের পর আর ঘটেনি আবার ২০৩৪ সালের আগে আর ঘটবেও না। যে পূর্ণিমা ১৩ নভেম্বর রাত ১০টার পর পড়বে এবং ১৪ নভেম্বর সন্ধে ৭টা পর্যন্ত চলবে, সেই পূর্ণিমায় বিশেষ পূর্ণচন্দ্র দেখা যাবে। বিশেষ, কেন না, এই চাঁদের আয়তন হবে স্বাভাবিক পূর্ণিমার চাঁদের তুলনায় বেশ কিছুটা বড়ো। বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছেন ‘সুপারমুন’। সেদিন চাঁদের আয়তন আর উজ্জ্বলতা ঠিক কতটা বেশি হবে সে বিষয়ে যাবতীয় কিছু জানিয়েছে নাসা। নাসা বলছে, যাঁরা ১৯৪৮-এর পর জন্মেছেন তাঁদের জীবনে এমন ঘটনা প্রথমবার ঘটতে চলেছে।…

আরও পড়ুন

জীবনের সন্ধানে নাসার সাবমেরিন এ বার শনির চাঁদে

জীবনের সন্ধান করতে এ বার শনির উপগ্রহ ‘টাইটানে’ সাবমেরিন পাঠানোর পরিকল্পনা করছে নাসা। নাসার তরফ থেকে জানানো হচ্ছে, এই সাবমেরিন টাইটানের সমুদ্রগুলির রাসায়নিক মিশ্রণের যাবতীয় তথ্য অনুসন্ধান করবে। সেখানকার সব থেকে বড় সমুদ্রটির গভীরতাও মাপবে। তার ঢেউ-এর গতি, জোয়ারভাটা এবং সমুদ্রতলের আকৃতি সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য অনুসন্ধানও করবে। ডুবন্ত অবস্থায় যাবতীয় পরীক্ষা করার সময় এটি পৃথিবীর সঙ্গে সংযোগ রক্ষা করতে পারবে না। সাবমেরিনটি যখন আবার ভেসে উঠবে, এর শীর্ষে অবস্থিত মাস্তুলটি পৃথিবীর সঙ্গে সংযোগ রক্ষা করবে।  সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় ভাবে এই সাবমেরিনটি জীবনের সন্ধান করতে সক্ষম। ইনভার্স ডট কম থেকে জানা যাচ্ছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাসা ইনোভেটিভ অ্যাডভান্সড কনসেপ্টস সিম্পোজিয়াম-এ নাসার ক্রায়োজেনিক্স ইঞ্জিনিয়ার …

আরও পড়ুন

উজ্জ্বল মঙ্গল দেখুন দক্ষিণ-পূর্ব আকাশে

খবর অনলাইন: গোধূলির পর সন্ধে নামতেই দক্ষিণ-পূর্ব আকাশের দিকে চোখ রাখুন। মঙ্গল গ্রহকে উজ্জ্বল তারার মতো দেখতে লাগবে। আকাশ পরিষ্কার থাকলে সন্ধে থেকে ভোরের আগে পর্যন্ত, যে কোনও সময়ে এই মহাজাগতিক দৃশ্যের সাক্ষী হতে পারেন আপনি। মে মাসের শেষ পর্যন্ত এই সুযোগ মিলবে। সূর্য থেকে দূরত্বের নিরিখে তৃতীয় গ্রহ পৃথিবী এবং চতুর্থ গ্রহ মঙ্গল কাছাকাছি আসার দরুন এই ঘটনা ঘটছে। ২৬ মাসে এক বার এই দু’টি গ্রহ এত কাছাকাছি আসার ঘটনা ঘটে। পৃথিবী আর মঙ্গল সব চেয়ে কাছাকাছি আসবে ৩০ মে। সে দিন এই দু’টি গ্রহের দূরত্ব দাঁড়াবে ৭ কোটি ৫০ লক্ষ ৩০ হাজার কিলোমিটার। নিজেদের উপবৃত্তাকার কক্ষপথে সূর্যকে ঘিরে…

আরও পড়ুন