khabor online most powerful bengali news

জীবাশ্ম জ্বালানিতে ফিরছেন ট্রাম্প, তবু প্যারিস জলবায়ু চুক্তির পাশে চিন

ওয়াশিংটন ও বেজিং: ট্রাম্প প্রশাসনকে তোয়াক্কা না করে তারা দায়বদ্ধ থাকবে প্যারিস জলবায়ু চুক্তির কাছেই, জানিয়ে দিল চিন। প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার জলবায়ু সংক্রান্ত নির্দেশ বাতিল করতেই মঙ্গলবার ডোনাল্ড ট্রাম্প জারি করলেন নতুন কার্যনির্বাহী নির্দেশ। নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় থেকেই প্যারিস জলবায়ু চুক্তিকে ‘হাস্যকর’ বলে আসা ট্রাম্প যে এমনটা করবেন, আন্তর্জাতিক মহলে এমন আশঙ্কা ছিল তাঁর ক্ষমতায় আসার পর থেকেই। সম্প্রতি খাতায় কলমে সেটি করে দেখালেন প্রেসিডেন্ট। তাঁর নির্দেশ স্বাক্ষরের অনুষ্ঠানে তাঁকে ঘিরে ছিলেন বিভিন্ন কয়লা কোম্পানির একজিকিউটিভরা। ট্রাম্পের নতুন কার্যনির্বাহী নির্দেশ বুঝিয়ে দিল তিনি ফের কয়লাকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন। আর ঠিক এই ঘটনার পরই চিন প্রশাসন আরও এক বার জানিয়ে…

আরও পড়ুন

আবিষ্কার হওয়া খুদে মথ-দের নামকরণ হল মার্কিন প্রেসিডেন্টের নামে

ক্যালিফোর্নিয়া: নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় থেকেই খবরের শিরোনামে তিনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  সদ্য শপথ নিয়ে ক্ষমতায় এলেন। এরই মধ্যে সম্পূর্ণ অন্য এক কারণে আবার প্রচারে। সম্প্রতি আবিষ্কার হওয়া এক মথের প্রজাতির নাম রাখা হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের নামে। প্রজাতিটি এতই ছোটো, সব মিলিয়ে পাখার দৈর্ঘ্য বড়ো জোর আধ ইঞ্চি। হলদে-সাদা মেশানো মথের সঙ্গে গবেষকরা মিল পেয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের চুলের স্টাইলের। আর তাই আবিষ্কার হওয়া নতুন প্রজাতির নাম রাখা হয়েছে ‘নিওপালপা ডোনাল্ডট্রাম্পি’। বিবর্তনবাদ নিয়ে গবেষণারত কানাডীয় বিজ্ঞানী ভাজরিক নাজারি, ক্যালিফোর্নিয়ায় কীটপতঙ্গ নিয়ে গবেষণা করতে গিয়েই, এক নতুন প্রজাতির মথ খুঁজে পান। নিওপালপা পরিবারে প্রায় ৪৮৩০ টি প্রজাতি আছে। “জনপ্রিয় কোনো ব্যক্তিত্বের…

আরও পড়ুন

রাশিয়ার সঙ্গে আমার কোনো লেনদেন নেই: ডোনাল্ড ট্রাম্প

নিউ ইয়র্ক: ৬ মাস আগে শেষ সাংবাদিক বৈঠক করেছিলেন। বুধবার আবার করলেন। তখন ছিল নিবার্চনী প্রচারের শুরু। এখন তিনি ভাবী প্রেসিডেন্ট। আর ঠিক ১০ দিন পরেই আমেরিকার ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। অথচ গোটা আমেরিকা জুড়ে প্রচার, বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ওবামা খোলাখুলি বলেই দিয়েছেন, তাঁর নির্বাচিত হওয়ার পেছনে রয়েছে ‘রাশিয়ার হাত’। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকেও একহাত নিয়েছেন ওবামা। এই অবস্থায় সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ট্রাম্প জানিয়ে দিলেন, তাঁর সঙ্গে রাশিয়ার কোনো লেনদেন হয়নি। এদিন ট্রাম্প বলেন, “আমার সঙ্গে রাশিয়ার কোনো চুক্তি হয়নি, হবেও না। রাশিয়ার থেকে আমি কোনো ঋণও নিইনি”। পাশাপাশি ট্রাম্প বলেন, “যদি পুতিন, ট্রাম্পকে পছন্দ করেন, তবে সেটা…

আরও পড়ুন

পদ ছেড়ে দেশে ফিরুন, ওবামার নিযুক্ত দূতদের নির্দেশ ট্রাম্পের

ওয়াশিংটন: কূটনৈতিক রীতিনীতি, নিয়মকানুনের ধার যে তিনি ধারেন না তার প্রমাণ আরও একবার দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বিভিন্ন দেশে রাষ্ট্রদূত হিসাবে যাঁদের নিয়োগ করেছিলেন, তাঁদের নিজ নিজ পদ ছেড়ে আগামী ২০ জানুয়ারির মধ্যে দেশে ফিরে আসতে বলেছে মার্কিন ভাবী প্রেসিডেন্টের টিম। এ ব্যাপারে রাষ্ট্রদূতদের কোনো বাড়তি সময় দেওয়া হবে না। এ এক অভূতপূর্ব পদক্ষেপ। রাজনৈতিক ভাবে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতদের এ ভাবে ফিরিয়ে আনা দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা মার্কিন ঐতিহ্যের পরিপন্থী। উল্লেখ্য, ২০ জানুয়ারিই প্রেসিডেন্ট হিসাবে ট্রাম্পের মেয়াদ শুরু হচ্ছে। ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের ফলে ব্রিটেন, জার্মানি, কানাডার মতো গুরুত্বপূর্ণ দেশগুলিতে আপাতত কোনো মার্কিন দূত থাকবেন না। তা ছাড়া রাষ্ট্রদূতদের পরিবারগুলিকেও…

আরও পড়ুন

সাইবার আক্রমণের অভিযোগ: ৩৫ রুশ কূটনীতিককে তাড়াল আমেরিকা

ওয়াশিংটন: ক্রমেই দ্বন্দ্ব তীব্র হচ্ছে আমেরিকা ও রাশিয়ার। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছে বলে আগেই অভিযোগ করেছিলেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন ও ভাবী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সখ্যও চর্চার বিষয় হয়ে রয়েছে গোটা দুনিয়ায়। এর মধ্যেই দু’দেশের সম্পর্কে টানাপোড়েন আরও এক ধাপ বাড়িয়ে ৩৫ জন রুশ কূটনীতিককে আমেরিকা থেকে দেশে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিল ওবামা প্রশাসন। ওয়াশিংটন ও লস অ্যাঞ্জেলেস-এর দুটি রুশ দফতরও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই দফতরগুলি থেকেই তথ্য সংগ্রহের কাজ করতেন রুশ কূটনীতিকরা। কূটনীতিকদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আমেরিকা ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওবামা বলেছেন, এটি ‘মার্কিন স্বার্থের ক্ষতি’-র বিরুদ্ধে ‘প্রয়োজনীয় ও যথাযথ’ সিদ্ধান্ত। কূটনীতিকদের বহিষ্কার…

আরও পড়ুন

প্যালেস্তাইন-ভূমে ইজরায়েলি বসতি নয়, প্রস্তাব পাস নিরাপত্তা পরিষদে

রাষ্ট্রপুঞ্জ: প্যালেস্তাইনের দখল করা জমিতে ইজরায়েলি বসতি স্থাপন বন্ধ করতে প্রস্তাব পাস হল রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে। ১৫ সদস্যের পরিষদে ১৪ সদস্যই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয়। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ভোটে অংশ নেয়নি আমেরিকা। বৃহস্পতিবার প্রথম এই প্রস্তাবটি পেশ করেছিল মিশর। কিন্তু ইজরায়েল ও ভাবী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চাপে প্রস্তাবটি ফিরিয়ে নেয় তারা। শুক্রবার নতুন করে প্রস্তাব আনে নিউজিল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ভেনেজুয়েলা ও সেনেগাল। ইজরায়েল ও ভাবী মার্কিন প্রেসিডেন্ট এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করে আমেরিকাকে ভেটো দিয়ে প্রস্তাব পাস আটকানোর দাবি জানায়। কিন্তু, আমেরিকা সে পথে হাঁটেনি। প্যালেস্তাইনের প্রতিনিধি সায়েব আরাকাত বলেছেন, “এটা আন্তর্জাতিক আইনের জয়ের দিন, এটা সভ্য ভাষা ও বোঝাপড়ার জয় এবং ইজরায়েলের…

আরও পড়ুন

প্রবাসীর অন্য চোখে: অভেদ্য বর্ণ/১৪

টরন্টোয় ‘ভায়োলেন্স এগেনস্ট উইমেন’-এর সক্রিয় কর্মী রুবিনা চৌধুরী। বর্ণবাদ নিয়ে ধারাবাহিক লিখছেন খবর অনলাইনে। রাজনৈতিক অঙ্গনে যখন কারওর বিজয়কে অবিশ্বাস্য আখ্যায়িত করা হয়, তখন বিজেতার জনপ্রিয়তার মাত্রা প্রশ্নের মুখোমুখি দাঁড়ায়। যে সব নেতৃত্ব জনপ্রিয় নয়, তাদের অবস্থান জনসাধারণের কতটা কাছের তা প্রশ্নবিদ্ধ। পুঁজির ক্রয়ক্ষমতা জনগণের হাত, মন নয়। ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি সাড়ার নাম, যা মস্তিষ্কের কোণা থেকে মনকে নাড়া দিল। যারা পৃথিবীর সব চাইতে ক্ষমতাশীল অফিসে কালো সুদর্শন, তীক্ষ্ণ বাকপতি, ধারালো বুদ্ধিসম্মত, একজনকে গদিতে বসতে দিয়ে পৃথিবী থেকে বর্ণবাদের উচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছিল, তাদের সেই ভুল এবং চাতুর্যের একটি উত্তর ট্রাম্পের বিজয়। তার আগমনে সাদা বর্ণের স্বস্তির নিশ্বাস সকলের গায়ে এসে পড়ছে…

আরও পড়ুন