khabor online most powerful bengali news

ব্রাত্য নয় প্লুটো, তাকেও গ্রহের মর্যাদা দেওয়া উচিত বলছে গবেষণা

ওয়াশিংটন : ‘একে চন্দ্র, দু’য়ে পক্ষ’ – এই পাঠের লাইন ভেঙে ছিল কয়েক বছর আগেই। নির্দ্বিধায় বলা যেত না ‘নয়ে নবগ্রহ’। ২০০৬ সালে এক দল মহাকাশবিজ্ঞানী ঘোষণা করেন প্লুটো নাকি গ্রহ নয়। কিন্তু সৌরজগতের অন্য গ্রহদের মতো প্লুটোকেও গ্রহের মর্যাদা দেওয়া উচিত। তাকে পদচ্যুত করা হয়েছে ভুল করে। এমনই বললেন আমেরিকার জন্স‌ হপকিনস বিশ্ববদ্যালয়ের মহাকাশবিজ্ঞানী কিরবি রুনিয়ন। তাঁর মতে, পাথুরে বরফাবৃত প্লুটোও গ্রহ। সৌরজগতে গ্রহ পরিবারের সব থেকে ছোটো সদস্য সে। প্লুটোর পরিসর চাঁদের চার ভাগের তিন ভাগ। আর পৃথিবীর ৫ ভাগের এক ভাগ। এর ভূপৃষ্ঠে যা কিছু ঘটে চলেছে তার সবটাই গ্রহের মতোই। সেখানে অ-গ্রহ জাতীয় কোনো কিছু ঘটেনি। গ্রহের…

আরও পড়ুন

ছায়াপথের রহস্য উদ্ঘাটনে ব্যস্ত জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা, নেতৃত্বে ভারতীয় বংশোদ্ভূত

নিউইয়র্ক : রাতের আকাশে কারা যেন জ্বলে উঠছে মাঝে মাঝেই। ১০ বছর ধরে ঘটছে এমনটা। খুব যে নিয়মিত তা নয়, তবে শেষ ৪ বছরে বেশ কয়েক বার ঘটেছে এই মহাজাগতিক ঘটনা। আমাদের চোখে পড়েনি ঠিকই। দূরবিন ছাড়া দেখতে পাওয়ার কথাও না। তা-ও আবার যে সে দূরবিন নয়, অত্যাধুনিক ভিএলএ (ভেরি লার্জ অ্যারে) যন্ত্রের সাহায্যে নিয়মিত আকাশে নজর রাখছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা। গবেষণার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে মেক্সিকো এবং পুয়ের্তো রিকোকে। দীর্ঘদিন ধরে পর্যবেক্ষণ করে বিজ্ঞানীরা দেখলেন, পৃথিবী থেকে কয়েক লক্ষ কোটি আলোকবর্ষ দূরের এক বামন ছায়াপথে খুব অল্প সময়ের জন্য (কয়েক মিলি সেকেন্ড) থেকে থেকেই হচ্ছে বিস্ফোরণ। প্রধানত বেতার তরঙ্গের বিস্ফোরণ। বিজ্ঞানীরা…

আরও পড়ুন

‘যখন সময় থমকে দাঁড়ায়’, বছরের প্রথম ভোরেই সেই বিরল মুহূর্ত

নয়াদিল্লি: কথায় বলে সময় আর নদীর স্রোত কারোর জন্য অপেক্ষা করেনা। ২০১৭-র প্রথম দিনটা কিছুটা ব্যতিক্রমী। ১ জানুয়ারি ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে পাঁচটায় সময় কিন্তু অপেক্ষা করল। পাক্কা এক সেকেন্ড। সারা দেশ জুড়ে রবিবার ভোর ৫ টা ২৯ মিনিট ২৯ সেকেন্ডের সঙ্গে যোগ হল আস্ত একটা সেকেন্ড। কোনো অলৌকিক ঘটনা নয়। আগাগোড়া বিজ্ঞানে মোড়া এক ঘটনা। সময় জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তও বিজ্ঞানীদের। পৃথিবীর আবর্ত গতির সময় কখনো ভুমিকম্প কিংবা চাঁদের মাধ্যাকর্ষণের প্রভাবে সামান্য কমে যায়। বলাই বাহুল্য, সেই পরিবর্তন খুবই সামান্য। কিন্তু জ্যোতির্বিজ্ঞানে সময়ের হিসেব এতটাই সূক্ষ্ণ, যে এক সেকেন্ডের পার্থক্য সেখানে মারাত্মক। এদিকে পৃথিবীর আবর্ত গতির পরিবর্তিত সময় আর জ্যোতির্বিজ্ঞানের…

আরও পড়ুন

১৩-১৪ নভেম্বরের পূর্ণিমায় দেখুন সুপার ‘সুপারমুন’

মহাকাশের এদিক ওদিক অনেক ঘটনাই ঘটে চলেছে নিয়ত। তার মধ্যে সামান্য কিছুই আমাদের নজরে আসে। এবার যা ঘটতে চলেছে তা ১৯৪৮ সালের পর আর ঘটেনি আবার ২০৩৪ সালের আগে আর ঘটবেও না। যে পূর্ণিমা ১৩ নভেম্বর রাত ১০টার পর পড়বে এবং ১৪ নভেম্বর সন্ধে ৭টা পর্যন্ত চলবে, সেই পূর্ণিমায় বিশেষ পূর্ণচন্দ্র দেখা যাবে। বিশেষ, কেন না, এই চাঁদের আয়তন হবে স্বাভাবিক পূর্ণিমার চাঁদের তুলনায় বেশ কিছুটা বড়ো। বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছেন ‘সুপারমুন’। সেদিন চাঁদের আয়তন আর উজ্জ্বলতা ঠিক কতটা বেশি হবে সে বিষয়ে যাবতীয় কিছু জানিয়েছে নাসা। নাসা বলছে, যাঁরা ১৯৪৮-এর পর জন্মেছেন তাঁদের জীবনে এমন ঘটনা প্রথমবার ঘটতে চলেছে।…

আরও পড়ুন