পাট পাতা থেকে গ্রিন টি, আশ্চর্য উদ্ভাবন বাংলাদেশি বিজ্ঞানীদের

0
82

 

চা কিন্তু চা পাতা দিয়ে তৈরি নয়, আবার কাপ পিছু খরচও এক টাকার থেকেও কম। ‘পাট পাতা’ দিয়ে তৈরি এই চা। শুনতে আশ্চর্য লাগলেও এই কথাটা ১০০% খাঁটি। তার হাতেনাতে প্রমাণ পাচ্ছেন বাংলাদেশ ও জার্মানির মানুষরা।

বাংলাদেশের পাট গবেষণা প্রতিষ্ঠানের এক দল বিজ্ঞানী পাট পাতা থেকে চা তৈরি করে দেখালেন। ১৯৯২-৯৩ সাল থেকেই তাঁরা এই বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছিলেন। আপাতত এই চায়ের নাম দেওয়া হয়েছে ‘মিরাকেল অর্গানিক গ্রিন টি’।

jute-tea
ডঃ নাসিমুল গনি। ছবি সৌজন্যে বিবিসি বাংলা।

প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ডঃ নাসিমুল গনি জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় তাঁরা এই কাজে সাফল্য পেয়েছেন। পাটের গুণাগুণ কতটা, চা হিসেবে খেলে তার সেই গুণাগুণ কতটা বজায় থাকে এমন বেশ কিছু বিষয় নিয়ে দীর্ঘ গবেষণা করেছেন। তার পর তাঁরা এই পাটপাতার চা তৈরি করেছেন। তিনি জানান, এই চা তৈরি করার জন্য পাটপাতা সংগ্রহ করার একটা নির্দিষ্ট সময় আছে। ফুল আসার আগেই সংগ্রহ করতে হবে এই পাতা। এর পর তা রোদে শুকিয়ে ছোটো ছোটো করে কেটে নিতে হয়। এই চায়ে কোনো টক্সিক উপাদান আছে কিনা তাও পরীক্ষা করে দেখেছেন গবেষকরা। পাট শাকের যে খাদ্যগুণ থাকে এই চায়েও সেই সব খাদ্যগুণ থাকবে। তোষা পাটের পাতা থেকে তৈরি এই চায়ের স্বাদ বেশ ভালো বলে জানান তিনি।

এই চা অনেকটা ‘গ্রিন টি’-র মতো। বিনা দুধে খেতে হয়। তিনি বলেন, চা বানানোর জন্য মধু বা চিনি ব্যবহার করা যায়। আবার এ সব ছাড়াও খাওয়া যায়।

এই নতুন ধরনের চা পাতা পরীক্ষামূলক ভাবে আপাতত ১৬ কেজি পাঠানো হয়েছে জার্মানিতে। এর পর আরও ২০০ কেজি পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here