রবিবার থেকে বাড়বে তাপমাত্রা, কলকাতায় ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা ক্ষীণ

0
93

কলকাতা বৈশাখ শুরু হয়ে গেল, কিন্তু এখনও সেভাবে তীব্র গরমের সম্মুখীন হয়নি পশ্চিমবঙ্গ। আবার বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ ছাড়া সে অর্থে ঝড়বৃষ্টিও মেলেনি। আপাতত এই পরিস্থিটি খুব একটা বদলাবে না, তবে রবিবার থেকে তাপমাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

গত সপ্তাহের শুরুতে বেশ কিছুটা উর্ধ্বমুখী হয়েছিল কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলাগুলির পারদ। কিন্তু ৩৭ ডিগ্রির ওপরে ওঠার পরেই বঙ্গোপসাগরে হাজির হয় ঘূর্ণিঝড় ‘মরুত’। মায়ানমারের উদ্দেশে যাত্রা করার পথে, সে পশ্চিমবঙ্গের ওপর অনেক জলীয় বাষ্প ঢুকিয়ে দিয়ে যায়। এর ফলে একদিকে যেমন বাধাপ্রাপ্ত হয় মধ্য ভারত থেকে আসা গরম হাওয়া, অন্যদিকে প্রবল বেগে বইতে শুরু করে দখিনা হাওয়া। তাই কলকাতার তাপমাত্রা এখন ৩৪-৩৫ ডিগ্রির মধ্যেই ঘোরাফেরা করছে।

ঝড়বৃষ্টির দেখা নেই কেন?

ঝড়বৃষ্টির জন্য কয়েকটি ফ্যাক্টর কাজ করে। একদিকে যেমন বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প ঢোকা প্রয়োজন, সেই সঙ্গে ছোটো নাগপুর মালভূমি অঞ্চলে অত্যধিক তাপমাত্রাও থাকা দরকার। উল্লেখ্য, কালবৈশাখী ঝড়ের উৎপত্তি ছোটোনাগপুর অঞ্চলেই হয়। দিনের বেলায় প্রবল গরমের ফলে ফলে ওখানকার হাওয়া গরম হয়ে উপরে উঠে যায়। তার শূন্যস্থান পূরণ করতে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছুটে যায় এই জলীয় বাষ্পভরা ঠান্ডা বাতাস। ঠান্ডা ও গরম হাওয়ার সংমিশ্রণে উল্লম্ব মেঘ তৈরি হয়। সেটাই শেষে কালবৈশাখী হয়ে আছড়ে পড়ে। কিন্তু এবার এখনও সে ভাবে অত্যধিক গরম পড়েনি ছোটোনাগপুর অঞ্চলে, যার ফলে যেটুকু উল্লম্ব মেঘ তৈরি হচ্ছে, তা বর্ধমান, বীরভূমেই ভেঙে যাচ্ছে। কলকাতায় আসতে পারছে না।

এই পরিস্থিতি এখনই বিশেষ বদলাবে বলে মনে করছেন না আবহাওয়াবিদরা। তাদের মতে জেলাগুলিতে ঝড়বৃষ্টি হলেও, কলকাতার ভাগ্যে এখনও সেভাবে খোলেনি। তবে একবারে নিরাশ করতেও রাজি নন তারা। কালবৈশাখী ঝড়ের সৃষ্টি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই হয়। এর পূর্বাভাস দু’ঘণ্টার বেশি আগে দেওয়া সম্ভবও নয়। তাই বুধ এবং বৃহস্পতিবার সন্ধ্যের দিকে অল্পস্বল্প বৃষ্টি হতেও পারে কলকাতায়।

তবে ৭২ ঘণ্টা পর ফের বাড়বে তাপমাত্রা। আগামী রবিবার থেকে তিন-চার দিনের জন্য চল্লিশ ডিগ্রির কাছাকাছি পৌঁছতে পারে তাপমাত্রা। এর পেছনে রয়েছে মধ্য ভারতের তীব্র গরম। শনিবারের পর কমতে শুরু করবে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ, সেই জায়গা দখল করতেই ধেয়ে আসবে গরম বাতাস। তবে কলকাতা তাপপ্রবাহের কবলে পড়বে কি না, সেটা সময়ই বলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here