Search

‘যখন সময় থমকে দাঁড়ায়’, বছরের প্রথম ভোরেই সেই বিরল মুহূর্ত

‘যখন সময় থমকে দাঁড়ায়’, বছরের প্রথম ভোরেই সেই বিরল মুহূর্ত

নয়াদিল্লি: কথায় বলে সময় আর নদীর স্রোত কারোর জন্য অপেক্ষা করেনা। ২০১৭-র প্রথম দিনটা কিছুটা ব্যতিক্রমী। ১ জানুয়ারি ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে পাঁচটায় সময় কিন্তু অপেক্ষা করল। পাক্কা এক সেকেন্ড। সারা দেশ জুড়ে রবিবার ভোর ৫ টা ২৯ মিনিট ২৯ সেকেন্ডের সঙ্গে যোগ হল আস্ত একটা সেকেন্ড।

কোনো অলৌকিক ঘটনা নয়। আগাগোড়া বিজ্ঞানে মোড়া এক ঘটনা। সময় জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তও বিজ্ঞানীদের। পৃথিবীর আবর্ত গতির সময় কখনো ভুমিকম্প কিংবা চাঁদের মাধ্যাকর্ষণের প্রভাবে সামান্য কমে যায়। বলাই বাহুল্য, সেই পরিবর্তন খুবই সামান্য। কিন্তু জ্যোতির্বিজ্ঞানে সময়ের হিসেব এতটাই সূক্ষ্ণ, যে এক সেকেন্ডের পার্থক্য সেখানে মারাত্মক। এদিকে পৃথিবীর আবর্ত গতির পরিবর্তিত সময় আর জ্যোতির্বিজ্ঞানের সময়ের মধ্যে বাড়তে থাকে ব্যবধান। সময়ের ফারাক যখন পৌঁছয় ০.৯ সেকেন্ডে, তখন পৃথিবীর সময়ের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয় বাড়তি এক সেকেন্ড।

ঠিক এরকমই ঘটে লিপ ইয়ারে। সূর্যের চারপাশে একবার প্রদক্ষিণে পৃথিবীর আসলে সময় লাগে প্রায় ৩৬৫দিন ৬ ঘণ্টা। অথচ, আমরা বছরের হিসেব করি ৩৬৫ দিনেই। এই বাদ পড়ে যাওয়া ৬ ঘণ্টা জমে জমে চার বছর পর একটা আস্ত দিন হিসেবে জুড়ে দেওয়া হয় ফেব্রুয়ারি মাসের শেষে। লিপ সেকেন্ডেও একই ব্যাপার। শুধু সময়টা এতটাই ছোট, রোজকার জীবনে এই পরিবর্তন প্রভাব ফেলতে পারেনা।

১৯৭২ সাল থেকে বিজ্ঞানী মহলে হয়ে আসছে এই সেকেন্ড সংযোজন। কখনো ৬ মাস অন্তর, কখনো বা ৭ বছর পর। এই নিয়ে ৩৭ বার যোগ হল লিপ সেকেন্ড।

শেয়ার করুন

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন