ফেড কাপ জেতানোর পাহাড় প্রমাণ চ্যালেঞ্জ নিয়ে লাল-হলুদের হট সিটে মৃদুল

0
3008

সানি চক্রবর্তী:

ভিনদেশি বা ভিনরাজ্য নয়, ইস্টবেঙ্গলের নিভন্ত মশালকে পুনরায় জ্বালানোর জন্য দায়িত্ব দেওয়া হল এক বাঙালিকে। তিনি মৃদুল বন্দ্যোপাধ্যায়। কয়েক দিন আগেই তাঁর হাত ধরেই সন্তোষ ট্রফি এসেছে বাংলায়।

দায়িত্ব নিয়েই তাঁর প্রথম পরীক্ষা ফেড কাপ। তার জন্য দরকার আই লিগের শেষ দু’টো ম্যাচে দলকে জিতিয়ে মনোবল চাঙ্গা রাখা। সে কথা এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বলন মৃদুল। তাঁর কথায়, “আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দাবিদার ছিল দলটা, কিন্তু অনেকগুলো কারণের জন্য হল না।” দল যে এই মুহূর্তে মানসিক ভাবে দুর্বল, সেটা মনে করিয়ে মৃদুলবাবু বলেন, “আই লিগের বাকি দু’টো ম্যাচে দলকে বুঝে নিতে চাই। এই ম্যাচ দু’টো জিতলে, বাড়তি অনুপ্রেরণা পাওয়া যাবে।”

সোমবার রাত পর্যন্ত ঠিক ছিল পরবর্তী কোচ হচ্ছেন আর্মান্দো কোলাসো। কিন্তু হঠাৎ নাটকীয় ভাবে পট পরিবর্তনে কোচের দৌড়ে পিছিয়ে পড়েন তিনি। তখন ইস্টবেঙ্গলের তিন সদস্যের পরামর্শদাতা কমিটির সুপারিশে মৃদুলই ইস্টবেঙ্গলের দায়িত্ব নিতে রাজি হয়ে যান। আপাতত দেড় মাসের জন্য। মৃদুলকে কোচ করার পেছনে বড়ো ভূমিকা পালন করেছেন পরামর্শদাতা কমিটির সদস্য মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য। প্রসঙ্গত, সন্তোষ ট্রফিতে বাংলার কোচ নির্বাচনের জন্য আইএফএ’র কোচিং কমিটিতে ছিলেন মনোরঞ্জন। বাংলার হয়ে তার পর মৃদুল কী করলেন সেটা সকলেরই জানা। এআইএফএফের ‘এ’ লাইসেন্সও রয়েছে মৃদুলের।

সব সময় মৃদুলের পাশেই থাকবে পরামর্শদাতা কমিটি, প্রয়োজনে তাঁকে পরামর্শও দেওয়া হবে, এই কথা বলে মনোরঞ্জন জানান, “মৃদুলের পাশে সব সময় রয়েছি। আগ বাড়িয়ে কোনো পরামর্শ দেব না, কিন্তু যদি দরকার পড়ে, নিশ্চয়ই দেব”।

মৃদুলকে দায়িত্ব দেওয়ার পেছনে কাজ করেছে সঞ্জয় সেন ফ্যাক্টরও। ময়দানের অপেক্ষাকৃত ছোটো দলগুলিকে কোচিং করিয়ে মোহনবাগানের দায়িত্ব নিয়েই দু’বছর আগে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন করা, ফের এ বার চ্যাম্পিয়নের হওয়ার মুখে মোহনবাগান। ইস্টবেঙ্গল কর্মকর্তাদের আশা আসন্ন ফেড কাপে দলকে ভালো কিছু উপহার দেবেন মৃদুল।

প্রতিজ্ঞাবদ্ধ মৃদুলও বললেন, ফেড কাপে ইস্টবেঙ্গলকে চ্যাম্পিয়ন করাই তাঁর একমাত্র লক্ষ, কারণ তাঁর কথায়, রানার্সদের কেউ কখনও মনে রাখে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here