বিদ্যুৎ প্রকল্প নিয়ে আলোচনার আশ্বাস, অবরোধ প্রত্যাহার

0
6

arnab-duttaঅর্ণব দত্ত  

রাজারহাটের কাছে পাওয়ার গ্রিড  করপোরেশনের প্রস্তাবিত প্রকল্প নিয়ে গ্রামবাসীদের সঙ্গে আলোচনার আশ্বাস দিল প্রশাসন। এই আশ্বাস পেয়ে আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন গ্রামবাসীরা।

বুধবার সকাল থেকে প্রস্তাবিত এই প্রকল্পটির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামেন দুই ২৪ পরগণা মিলিয়ে প্রায় ৪০টি গ্রামের মানুষ।  জমি জীবিকা বাস্তুতন্ত্র ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির ব্যানারে হাড়োয়া রোড অবরোধ করেন রাজারহাট, ভাঙড়, শাসন, মধ্যমগ্রাম, বারাসাত-সহ বারোটি থানা এলাকার প্রায় ৪০টি গ্রামের মানুষ। সম্পূর্ণ ভাবে অরাজনৈতিক এই আন্দোলনে এক দিকে যেমন স্থানীয় তৃণমূল নেতা কর্মীরা ছিলেন, ছিলেন সিপিএম ও কংগ্রেসের স্থানীয় নেতা-কর্মীরাও। তবে উল্লেখযোগ্য ভাবে কোনো দলেরই শীর্ষ নেতৃত্বকে এই আন্দোলনমঞ্চে দেখা যায়নি।

হাড়োয়া রোডে প্রায় বারোটি জায়গায় এ দিন সকাল থেকেই অবরোধ করেন প্রায় লক্ষাধিক গ্রামবাসী। সব থেকে বড়ো জমায়েতটি হয়েছিল পাওয়ার গ্রিডটি যেখানে তৈরি হবে সেই খামারহাটি এলাকায়। বিশাল পুলিশ মোতায়েন থাকলেও, আপাত শান্তিপূর্ণ ছিল এই আন্দোলন। আন্দোলনকারীরা জানান, গ্রামবাসীদের ভুল বুঝিয়ে জমি নেওয়া হয়েছিল। তাঁদের দাবি, পাওয়ার হাউস তৈরি করার নামে এই জমি নেওয়া হলেও, পরে জানা যায় এখানে পাওয়ার গ্রিড তৈরি হবে। তাঁদের মতে, পরিবেশের ওপর এই পাওয়ার গ্রিডের ব্যাপক প্রভাব পড়বে। আদতে তিন ফসলি এই জমি, এক ফসলি হয়ে দাঁড়াবে বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

খামারহাটি, মাঝিভাঙা, টোনা পদ্মপুকুর, ঢিবঢিবি প্রভৃতি গ্রামের প্রায় সব মানুষই স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে এই আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। বুধবার এই সব গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, অধিকাংশ বাড়ির দরজা-জানলা বন্ধ। বয়স্ক এবং অসুস্থ ব্যক্তিরা ছাড়া প্রায় সকলেই এই অবরোধে যোগ দেন। আন্দোলনে মহিলাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। আন্দোলনকারীদের দাবি, গত আট মাস ধরে এই পাওয়ার গ্রিডের বিরুদ্ধে সরকারের কাছে দাবি জানানো হলেও কেউ কোনো উচ্চবাচ্য করেনি। তাঁরা হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, বুধবার বিকেলের মধ্যে সরকারের তরফ থেকে আলোচনার ডাক না এলে অনির্দিষ্ট কালের জন্য হাড়োয়া রোড অবরোধ করে রাখা হবে।

তবে দুপুরে এডিএম, এসডিও আর পুলিশ সুপারের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধিদের বৈঠকে সমস্যার জট খোলে। সিপিআইএমএল রেড স্টারের তরফ থেকে জানান হয়, এ মাসের মধ্যেই আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসার আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন। তাদের আশা এই প্রকল্পের কাজও বন্ধ করা হবে। 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here