অ্যামাজন শুধুই তাদের অনুকরণ করছে, অভিযোগ ফ্লিপকার্টের

0
55

বেঙ্গালুরু: দেশের বাজারে ভারতীয় ই-কমার্স সংস্থা ফ্লিপকার্টের সঙ্গে ক্রমশই রেষারেষি বাড়ছে আন্তর্জাতিক প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যামাজনের। সপ্তাহ খানেক আগেই অ্যামাজন তাদের ভারতীয় ইউনিটে বিনিয়োগ করেছে ২০১০ কোটি টাকা। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ফ্লিপকার্টকে টেক্কা দিতেই এই বিশাল অঙ্কের লগ্নি। দিন কয়েকের মধ্যেই  ফ্লিপকার্টের পক্ষ থেকে আক্রমণ করা হল অ্যামাজনকে। ভারতীয় ই-কমার্স সংস্থার অভিযোগ, অ্যামাজন শুধুই তাদের অনুকরণ করে থাকে।

ফ্লিপকার্টের বিজ্ঞাপন এবং বাণিজ্যিক বিভাগের প্রধান কল্যাণ কৃষ্ণমূর্তি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, “আমাদের ‘বিগ বিলিয়ন ডে’-র ধারণা থেকে শুরু করে ব্যাঙ্ক অফার সব কিছুই অনুকরণ করে অ্যামাজন। নয়তো অপেক্ষা করে, কখন অন্য কোনো কেউ এসে কী করতে হবে, বলে দেবে। এই ভাবে বাজারে শুধু টাকা ঢেলে খুব বেশি দূর পৌঁছনো যাবেনা”। ওই যৌথ সাক্ষাৎকারে কৃষ্ণমূর্তির সঙ্গে ছিলেন ফ্লিপকার্টের সিইও বিনি বনশল। কৃষ্ণমূর্তির সুর ধরে বনশল বলেন, “টাকা দিয়ে কোন সমস্যার সমাধান হয় না। টাকা দিয়ে সমস্যার সমাধান করা অনেকটা ড্রাগের নেশার মতো”।

আরও পড়ুন ; ২০১০ কোটি: অ্যামাজনের ভারতীয় ইউনিটে সর্বোচ্চ এককালীন লগ্নি

বিজ্ঞাপণ

ই-কমার্সের বাজারে অবশ্য ফ্লিপকার্টের চেয়ে বয়সে অনেকটাই প্রবীণ অ্যামাজন। প্রথমটি নিতান্তই শিশু। অ্যামাজনে কর্মরত দুই ইঞ্জিনিয়ারই চাকরি ছেড়ে ২০০৭ সালে তৈরি করেন নিজেদের সংস্থা ফ্লিপকার্ট। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক বাজারে অ্যামাজনের পথ চলা শুরু সেই ১৯৯৪ সালে।  

সম্প্রতি অ্যামাজনের ভারতীয় ইউনিটে সর্বোচ্চ এককালীন লগ্নি প্রসঙ্গে মতামত জানতে চাইলে ক্ষোভ উগরে দেন ফ্লিপকার্টের আরেক প্রতিষ্ঠাতা সচিন বনশল। বলেন, দেশের স্টার্ট আপ সংস্থাগুলোকে আন্তর্জাতিক বাজারের প্রতিযোগিতা থেকে বাঁচাতে কেন্দ্রের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা দরকার।

বিজ্ঞাপন

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here