Search

অন্দরসজ্জা: থিংক গ্রিন…লিভ গ্রিন/১

অন্দরসজ্জা: থিংক গ্রিন…লিভ গ্রিন/১

moitry মৈত্রী মজুমদার

শীতের হাওয়ায় লাগল নাচন আমলকির ওই ডালে ডালে…।

আজ সকালে ঘুম থেকে উঠেই দেখি, আমার বারান্দার ছোট্টো বাগানে সদ্য ফোটা দু’টো বাসন্তী গাঁদা ফুল তাদের ঝিরিঝিরি পাতাগুলোর সঙ্গে শিরশির করে কাঁপছে। সকালবেলার এই হালকা হিমেল হাওয়ায় কফির মগটা হাতে নিয়ে বারান্দায় দাঁড়িয়ে এই গানের কলিটাই বারবার মনে আসছে…

তাই ভাবলাম আপনাদেরই জিজ্ঞেস করি, এই মরশুমে আপনাদের বাগানে কী কী ফুটল ?

কী বললেন, এই শহুরে ছোটো ছোটো আস্তানায় বাগান করার জায়গা নেই? উঁহু তা বললে তো শুনছি না। আপনার যদি ইচ্ছা থাকে, তা হলে আমরা আছি উপায় বলার জন্য।

ভাবছেন তো এই স্বল্প পরিসরে কোথায় জায়গা বাগান করার? তা হলে বলি আপনার ঘরের প্রতিটি আনাচকানাচই হয়ে উঠতে পারে আপনার বাগান করার জায়গা।

যেমন ধরুন, বাড়ির মুখ্য প্রবেশদ্বারের পাশে বা সিঁড়ির রেলিং-এর ধার ঘেঁষে সারি সারি টবে ছোটো ছোটো গাছ রাখতে পারেন।

p1

রান্নাঘরের বা অন্যান্য ঘরের জানালার বাইরেটা অনায়াসে পরিণত হতে পারে আপনার কিচেন গার্ডেন-এ।

p2

এমনকি আপনার স্নানঘরের জানলায় বা দেওয়ালে ছোটো দু’টো তাক লাগিয়ে ছোটো ছোটো রঙিন পাত্রে গাছ রাখলে অন্দরসজ্জার পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষারও কাজ হবে।

p3

আর সব থেকে উপযুক্ত জায়গা হল বাড়ির বারান্দা বা ছাদের একটি কোনা। এখানে গড়ে তুলুন ভার্টিক্যাল গার্ডেন।

p4

আপনার বাড়িতে জায়গা কম থাকতে পারে কিন্তু কল্পনায় শক্তি তো কম নেই, তাই আপনার বারান্দার বা প্রবেশদ্বারের পাশের একটি দেওয়াল বেছে নিন। এটিই এখন আপনার বাগানের জমি। এখানে কাঠের বা বাঁশের খাঁচা দাঁড় করান আর তাতে লতানে গাছ বাইয়ে দিন।

p5

এই দেওয়ালেই নানা উচ্চতায়, বিভিন্ন ধরনের পাত্রে ঝুলিয়ে দিন আপনার প্রিয় গাছগুলিকে।

পুরোনো হয়ে যাওয়া জুতোর বা বাসন রাখার র‍্যাকটি একটু সাফাই আর রঙ করে বারান্দায় রাখুন আর তার উপর সাজিয়ে রাখুন সারি সারি টব।

p6

বারান্দার রেলিং-এ আর সিলিং থেকেও ঝুলিয়ে দিতে পারেন বিভিন্ন রঙের আর মাপের পাত্রে থাকা ফুলের বা পাতাবাহারের টব।

p7

ছাদের ওপরেও ব্যবহার করুন একই পদ্ধতি। ফুলের টব ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখবেন না। এক পাশে সারি বেঁধে, ওপর-নীচে করে বিভিন্ন ধাপে টবগুলি সাজান। কম জায়গায় বেশি গাছ রাখতে পারবেন আর যত্ন করতেও সুবিধা হবে।

p8

ঘরের জানালার রেলিং থেকে বাইরের দিকে ঝুলিয়ে দিন কাঠের বাক্স বা বেতের ঝুড়ি, ব্যাস তৈরি আপনার উইন্ডো-বক্স গার্ডেন।

p9

জায়গা তো হল। এ বার ভাবতে হবে গাছ লাগানোর পাত্রের কথা। ছোট্টো বাগান বানাতে গিয়ে পকেটে বড়োসড়ো ফুটো হলে তো আর চলবে না।

তারও উপায় আছে আপনার বাড়িতেই। পুরোনো হয়ে যাওয়া কাপ, কাঁচের জারে গাছ লাগান। পুরোনো কেটলি, বাসন, টিনের কৌটো — এগুলিতে নিজের সৃজনশীলতা যোগ করে বানিয়ে নিন আপনার মনের মতো টব।

p10

বিদেশি চকলেটের বাক্স বা ফরেন বিস্কুটের টিন, সুন্দর দেখতে যে কোনো পাত্রই ব্যবহার করতে পারেন গাছ লাগাতে।

p11

পুরোনো টায়ার বা থার্মকলের বাক্স পুরোনো জিনিসের দোকান থেকে কম দামে কিনে আনুন আর রঙ করে বানিয়ে নিন ফ্লাওয়ার বক্স।

p12

পুরোনো ঝুড়ি, ফলের কার্টন, বেতের বাস্কেট — এই সব কিছু থেকেই আপনি পেতে পারেন আপনার রসদ। এমনকি খালি হয়ে যাওয়া নরম পানীয়র বোতল দড়ি বেঁধে ঝুলিয়ে বানিয়ে নিতে পারবেন ভার্টিক্যাল গার্ডেন।

p13

তা হলে আর দেরি কেন ? লেগে পড়ুন বাগানের জায়গা ঠিকঠাক করতে আর আমরা তৈরি হয়ে নিই আপনাদের আরও খোঁজখবর দেওয়ার জন্য। আপনার বাগান আরও উপভোগ্য করে তলার উপায় নিয়ে আমরা ফিরে আসব পরের আলোচনায়।

(চলবে)

ছবি: ইন্টারনেটের মাধ্যমে

শেয়ার করুন

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন