গ্রুপ ডি : এলিমেন্টরি ম্যাথমেটিক্স বিষয়ের প্রস্তুতি

0
206

প্রশ্ন হবে বাংলা এবং ইংরাজি মাধ্যমেই। যারা পুরোনো সিলেবাসে পড়াশোনা করেছ তাদের পুরোনো সিলেবাস অনুযায়ী পড়াশোনা করাই শ্রেয়। আবার নতুন সিলেবাস নিয়ে যারা পড়াশোনা করেছ তারা নতুন সিলেবাসে পরীক্ষা দেবে। আজ এলিমেন্টরি ম্যাথমেটিক্স বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

আবার বলছি গ্রুপ ডি পরীক্ষা হলেও সিলেবাস কিন্তু অন্য রকমের। অন্য রকম কী এ বার আলোচনা করি –

অঙ্কের মধ্যে থাকবে পাটিগণিত, বীজগণিত, জ্যামিতি। অষ্টম শ্রেণির যে অঙ্ক বই তোমরা অনুশীলন করবে তাতে দেখবে প্রথমে শুরু হবে ‘পূর্বপাঠের পুনরালোচনা’, সেটাও তোমরা অনুশীলন করবে। পূর্বপাঠের প্রশ্নগুলোতে যে অঙ্কগুলো থাকে সেগুলো সাধারণত একটু শক্ত ধরনের হয়। তার জন্য অনেক সময় আগের ক্লাস অর্থাৎ সপ্তম শ্রেণির বই তোমরা দেখে নেবে। যে কোনো সিলেবাস এমন ভাবে তৈরি হয় যেখানে ‘পূর্বপাঠ’ বিশেষ কাজে লাগে। ‘পাঠক্রম’ সেই কারণে গুরুত্বপূর্ণ। এমন ভাবে এ বার প্রশ্ন করা হবে যাতে তোমার অঙ্ক সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান না থাকলে উত্তর দিতে পারবে না। আমি অঙ্কের বেসিক জ্ঞানের কথা বলছি।

একটু বিস্তারিত বলি –

১) আয়তক্ষেত্র ও বর্গক্ষেত্রের ক্ষেত্রফল সংক্রান্ত বাস্তব সমস্যা। অর্থাৎ বাস্তবে আয়তক্ষেত্র বা বর্গক্ষেত্রের অংক কেমন হতে পারে। উদাহরণ – একটি আয়তাকৃতি ঘরের একটা মাপ দেওয়া হল। সেই ঘরে টাইলস বসানো হবে – তারও মাপ দেওয়া হল। তা হলে কতগুলি টাইলস বসানো হবে?

২) উৎপাদকে বিশ্লেষণ

৩) আয়তক্ষেত্র, বর্গক্ষেত্র ও রম্বস আঁকা

৪) চতুর্ভূজের শ্রেণিবিভাগ ও তার ধর্ম

৫) কাগজ ভাঁজ করে বিভিন্ন কোণ ( ৯০, ৬০, ৪৫, ২২.৫, ১৫ ডিগ্রি মাপের)

৬) বাস্তব সমস্যা থেকে স্তম্ভচিত্র তৈরির ধারণা। তোমরা যারা গ্রাফ বা লেখচিত্র করা শিখেছ তাদের সুবিধা হবে। স্তম্ভচিত্রকে ইংরাজিতে বার ডায়াগ্রাম বলে। আনুভূমিক ও উলম্ব অক্ষে কোনো দু’টি বিষয়ের পরিমাপ নিয়ে এই স্তম্ভচিত্র তৈরি করা হয়।  বিষয়টি খুব শক্ত নয়। কিন্তু অভ্যাস করতে হবে। এই স্তম্ভচিত্র থেকে আমরা কোনো বিষয়ে পরিসংখ্যান বুঝে নিতে পারি।

৭) স্তম্ভচিত্র থেকে সমস্যা সমাধান

৮) পাই চিত্রের ধারণা

৯) মূলদ সংখ্যার ধারণা ও বাস্তব সংখ্যা – মূলদ সংখ্যার যোগ, বিয়োগ, গুণ, ভাগ শিখতে হবে। মূলদ সংখ্যাকে সংখ্যারেখায় কী ভাবে স্থাপন করবে সেটাও জানতে হবে।

১০) ঘনফলের ধারণা – দু’টি পদের সমষ্টি বা অন্তরের ঘনফল।

এ ছাড়া বিভিন্ন কোণের মান এবং  নাম। যেমন – সমকোণ, সূক্ষ্মকোণ ইত্যাদি।

তোমরা যারা নতুন বা পুরোনো সিলেবাসে পরীক্ষা দেবে তারা অবশ্যই পাঠ্যবই জোগাড় করবে। পুরো বইটার সিলেবাস সম্পূর্ণ অভ্যাস করে তার পর পরীক্ষা দিতে যাবে। আবার বলছি পরীক্ষার মান অষ্টম শ্রেণির হলেও যথেষ্ট শক্ত হবে। এখন থেকে তার প্রস্তুতি নাও। আমি পরের পর্বে তোমাদের সঙ্গে জেনারেল স্টাডিজ নিয়ে আলোচনা করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here